মেইন ম্যেনু

সেরা বাজে ছবির মনোনয়ন পেয়েছে শাহরুখের ‘দিলওয়ালে’

ভালো ছবির জন্য যেমন পুরস্কার দেওয়া হয়, তেমনি বাজে ছবির জন্যও আছে তিরস্কার। তবে আদতে তিরস্কার হলেও একে বলা হয় ‘পুরস্কার’।

হলিউডে সেরা ছবির জন্য যেমন অস্কার দেওয়া হয়, তেমনি আরেকটি আয়োজন রয়েছে ‘রেজি’ নামে। বছরের সবচেয়ে খারাপ কাজগুলোকে সেখানে পুরস্কার দেওয়া হয়।

এই চল শুরু হয়েছে বলিউডেও। ফিল্মফেয়ার, আইফা, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার তো রয়েছে ভালো ছবির জন্য। আর প্রতিবছর বাজে ছবিকে দেওয়া হয় ‘গোল্ডেন কেলা অ্যাওয়ার্ড’।

র‍্যান্ডম ম্যাগাজিন প্রতিবছর এই পুরস্কার দিয়ে থাকে। প্রথমে দেওয়া হয় মনোনয়ন। এরপর অনলাইনে দর্শকদের ভোটে নির্বাচিত করা হয় বছরের বাজে ছবি ও বাজে অভিনেতা-অভিনেত্রী ও পরিচালকদের। তারপর আয়োজন করে দেওয়া হয় সেরা বাজে ছবির পুরস্কার।

২০০৯ সালে প্রথম এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল। এর পর থেকে প্রতিবছরই দেওয়া হয় গোল্ডেন কেলা অ্যাওয়ার্ডস।

গত বছরের হিন্দি ছবিগুলোর মধ্যে থেকেও এবার বাছাই করে সবচেয়ে বাজে ছবিগুলোকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। অষ্টম বার্ষিক গোল্ডেন কেলা অ্যাওয়ার্ডসে বাজে ছবির তালিকায় রয়েছে অনেক ব্যবসাসফল ছবি। সালমান খানের ‘প্রেম রতন ধান পায়ো’ আর শাহরুখের ‘দিলওয়ালে’ রয়েছে এই তালিকায়। আরো আছে ‘বোম্বে ভেলভেট’, ‘শানদার’ ও ‘সিং ইজ ব্লিং’।

২০১৫ সালের ছবিগুলোর মধ্যে কেলা অ্যাওয়ার্ডে সবচেয়ে বেশি মনোনয়ন পেয়েছে ‘প্রেম রতন ধান পায়ো’, ‘তেভার’ এবং ‘সিং ইজ ব্লিং’।

এবার নিয়ে পরপর তিনবার বাজে অভিনেতা ও অভিনেত্রীর মনোনয়ন পেয়েছেন ভাইবোন অর্জুন ও সোনম কাপুর। অর্জুন পেয়েছেন ‘তেভার’-এর জন্য আর সোনম পেয়েছেন ‘প্রেম রতন ধান পায়ো’ ছবির জন্য।

এ ছাড়া বাজে অভিনেতার মনোনয়ন পেয়েছেন অর্জুন রামপাল (রয়), সুরাজ পাঞ্চোলি (হিরো), ইমরান খান (কাট্টি বাট্টি) এবং ‘পেয়ার কা পাঞ্চনামা ২’ ছবির তিন অভিনেতা কার্তিক আরিয়ান, ওমকার কাপুর ও সানি সিং।

সেরা বাজে অভিনেত্রী হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছেন সোনাক্ষি সিনহা (তেভার), শ্রদ্ধা কাপুর (এবিসিডি ২), অ্যামি জ্যাকসন (সিং ইজ ব্লিং), ‘কিস কিস কো প্যায়ার কারু’ ও ‘ক্যালেন্ডার গার্লস’ ছবির সব অভিনেত্রীরা।

আগামী ৩০ মার্চ পর্যন্ত www.goldenkela.com ওয়েবসাইটে গিয়ে দর্শকরা ভোট দিতে পারবেন।