মেইন ম্যেনু

সৌদি বাদশাহ’র হোটেল বিলাস!

আবর শাসকদের বিলাসী জীবন-যাপনের প্রায়ই খবরে আসে। শুধু দেশে নয়, দেশের বাইরে যেখানেই যান না কেন সব জায়গাতেই অটুট থাকে তাদের আরাম-আয়েশ। এবার হোটেল বিলাসের জন্য খবরের শিরোনাম সৌদি আরবের নতুন বাদশাহ।

গত শুক্রবার তিন দিনের সফরে যুক্তরাষ্ট্র গিয়েছিলেন সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ। সফরকালে একটি বিলাসবহুল হোটেলে অবস্থান করেন তিনি। সৌদি বাদশাহ’র জন্য গাড়ি থেকে শুরু করে রেড কার্পেট, লাইট থেকে আলনা, টেবিল থেকে টুপি সব কিছুই ছিলো স্বর্ণে মোড়ানো। তিন রাতের জন্য ওয়াশিংটনের ২২২ রুমের একটি পাঁচ তারকা হোটেলের পুরোটাই ভাড়া নেন সৌদি বাদশাহ। এজন্য আগে ভাড়া নেওয়া গেস্টদের আশেপাশের অন্য হোটেলে সরিয়ে নেওয়া হয়।

তিন রাতের জন্য ওয়াশিংটনের ২২২ রুমের একটি পাঁচ তারকা হোটেলের পুরোটাই ভাড়া নেন সৌদি বাদশাহ। এজন্য আগে ভাড়া নেওয়া গেস্টদের আশেপাশের অন্য হোটেলে সরিয়ে নেওয়া হয়।

UP2ibYV4rWzJ

পাঁচ তারকা ওই হোটেলের প্রতি রাতের জন্য ২ হাজার ডলার খরচ হয়। সৌদি বাদশাহ’র এই কাণ্ডকীতির জন্য সেখানে আরো নতুন নতুন জিনিস যোগ করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে ‘পলিটিকো’ পত্রিকা জানায়,এই সপ্তাহে হোটেল বেশি চাকচিক্য দেখা গেছে। সব ছিলো সোনালী আসবাবপত্র। লাল কার্পেটও ছিলো সোনায় মোড়ানো, এমনকি হোটেলের পার্কিং গ্যারেজ পিচও সোনায় মোড়ানো হয়। হোটেলের নিয়মিত একজন কর্মী বলেন, সবই ছিলো সোনার। স্বর্ণের আয়না, স্বর্ণের টেবিল, স্বর্ণের বাতি, এমনকি সোনার টুপি ও আলনা।

eGaDyGOhe2Gl

বিলাসবহুল জীবন-যাপনের জন্য সৌদি বাদশাহ আগে থেকেই পরিচিত। মাত্র একমাস আগেই ফ্রান্সের রিভেরিয়া সমুদ্র সৈকতে ছুটি কাটানো জন্য ১ হাজার লোক ভাড়া করেছিলেন এবং পুরো সৈকত বন্ধ করে দেন।

সৎ ভাই বাদশাহ আব্দুল্লাহ’র মৃত্যুর পর গত জানুয়ারিতে সিংহাসন বসেন আবদুল আজিজ। ক্ষমতায় বসার পর এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্র সফর করলেন তিনি।