মেইন ম্যেনু

সোনালী ব্যাংককে ৩৩ লাখ পাউন্ড জরিমানা

বাংলাদেশের রাষ্ট্রমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক সোনালী ব্যাংককে যুক্তরাজ্যে ৩৩ লাখ পাউন্ড জরিমানা করা হয়েছে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৩৩ কোটি টাকার বেশি। মুদ্রা পাচার নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার জন্য এই জরিমানা করা হয়।

যুক্তরাজ্যের আর্থিক খাত তদারককারী কর্তৃপক্ষ ফিন্যানশিয়াল কনডাক্ট অথরিটি (এফসিএ) এই জরিমানা করে বলে বিবিসির খবরে বলা হয়েছে।

একই সঙ্গে পরবর্তী ২৪ সপ্তাহ নতুন গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা জমা নেওয়ার ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করে এফসিএ।

সোনালী ব্যাংক ইউকের ৫১ শতাংশ শেয়ারের মালিকানা বাংলাদেশ সরকার। বাকি অংশের মালিক সোনালী ব‌্যাংক। যুক্তরাজ‌্যে ব্যাংকটির তিনটি শাখা আছে। এর একটি লন্ডনে, অন‌্য দুটি বার্মিংহাম ও ব্রাডফোর্ডে।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের সেবা দেওয়া এবং রেমিট্যান্স পাঠানোর লক্ষ‌্যে প্রতিষ্ঠিত হয় সোনালী ব‌্যাংক ইউকে। তবে উক্ত জরিমানা ও নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্তের ফলে সোনালী ব‌্যাংকের রেমিট্যান্স পাঠানোর স্বাভাবিক কার্যক্রম বিঘ্নিত হবে না বলে বিবিসির খবরে বলা হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাজ‌্য সোনালী ব‌্যাংককে জরিমানার পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটির মুদ্রা পাচার নিয়ন্ত্রণ বিভাগের প্রধান কর্মকর্তা স্টিভেন স্মিথকে ব‌্যাংক খাতের এই ধরনের চাকরিতে নিষিদ্ধ ও ১৮ হাজার পাউন্ড জরিমানা করা হয়েছে।

সম্ভাব‌্য মুদ্রা পাচার ঠেকাতে পদ্ধতি উন্নত করতে সোনালী ব‌্যাংককে ২০১০ সালে সতর্ক করেছিল এফসিএ। কিন্তু এর পরের চার বছরেও ব‌্যবস্থার উন্নতি ঘটাতে ব‌্যর্থ হয় সোনালী ব্যাংক ইউকে। যে কারণে ব্যাংটিকে এই জরিমানা করা হয়েছে।