মেইন ম্যেনু

সৌদির মোবাইল সেক্টর ছাড়তে হচ্ছে প্রবাসীদের

২০ হাজার সৌদি নাগরিকের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে আগামী ছয় মাসের মধ্যে (২ সেপ্টেম্বর) সৌদি আরবের মোবাইল ফোন শিল্পকে শতভাগ দেশিকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির শ্রম মন্ত্রণালয়। আর এ সিদ্ধান্তের কারণে অনেক প্রবাসীই বেকার হয়ে পড়বে। যার প্রভাব পড়বে বাংলাদেশে আসা রেমিটেন্সের ওপর।

গত বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সৌদি শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এক সভায় জানানো হয়, আগামী ২ সেপ্টেম্বরের পর মোবাইল ফোন শিল্পে (সেলস, রিপেয়ার এবং এক্সেসরিজ) কোনো অভিবাসী শ্রমিক পাওয়া গেলে তাকে দুই বছরের জেল, এক মিলিয়ন রিয়াল জরিমান এবং সৌদি আরব থেকে একেবারে বহিষ্কার করা হবে।

সভায় শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, পল্লী ও সিটি করপোরেশন, তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়, কারিগরি ও বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ করপোরেশন, সামাজিক বীমা খাতের প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

এই সেক্টরকে শভভাগ সৌদিকরণের পদক্ষেপের অংশ হিসেবে আগামী তিনমাসে ৫০ শতাংশ এবং ছয় মাসের মধ্যে শতভাগ এ কাজ সম্পন্ন করা হবে। ছোট, বড় এবং মাঝারি কাভারআপ ব্যবসা কমিয়ে শিল্পটিতে সৌদি পুরুষ এবং নারীদের জন্য একটি স্থিতিশীল ও টেকসই কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

টেকনিক্যাল অ্যান্ড ভোকেশনাল ট্রেনিং করপোরেশন (টিভিটিসি) এবং রিপ্রেসেনটেটিভ ফর দ্য হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট ফান্ড (এইচআরডিএফ) অভিবাসীদের জায়গায় সৌদি গ্রাহক সেবা, রক্ষণাবেক্ষণ, তরুণ উদ্যোক্তা প্রতিস্থাপন করার জন্য প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও সহায়তা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

টিভিটিসি জানায়, ইতিপূর্বে ৩৩ হাজার সৌদি এই প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য আবেদন করেছেন।

এদিকে এ শিল্পে বেশকিছু প্রবাসী বাঙালি কাজ করেন। মূলত ইঞ্জিনিয়ারিং সেক্টরেই বেশি। ফলে সৌদি আরবের এ সিদ্ধান্তে তারা একেবারেই বেকার হয়ে পড়বে।