মেইন ম্যেনু

সৌদি আরবে শিয়া সমাবেশে হামলা, নিহত ৫

সৌদি আরবের পূর্বাঞ্চলীয় শহর সিহাতে শুক্রবার শিয়া সম্প্রদায়ের এক ধর্মীয় অনুষ্ঠানে চালানো বন্দুক হামলায় কমপক্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো নয়জন। এ হামলার ঘটনায় ইতিমধ্যে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে সৌদি পুলিশ। এই হত্যার ঘটনায় দেশটির শিয়া অধ্যুষিত অঞ্চলে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আল আরাবিয়া টিভি চ্যানেল দাবি করেছে, ইরাক ও সিরিয়ায় প্রভাব বিস্তারকারী জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট ওই হামলা চালিয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে ওই হামলার কারণ জানা যায়নি। শুক্রবার আশুরার দুদিন আগে আল-কাতিফ রাজ্যের শিহাত শহরের এক অডিটরিয়ামে ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল শিয়ারা।

এক বিবৃতিতে সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক নারীসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। তবে এ হামলার উদ্দেশ্য সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করেনি মন্ত্রণালয়। এছাড়া ওই বন্দুকধারীরও পরিচয়ও জানা যায়নি। নিহতদের মধ্যে ওই হামলাকারীও রয়েছেন।

সৌদি সরকারি টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে, ওই বন্দুকধারীর পড়নে ছিল বিস্ফোরক বোঝাই বেল্ট। তিনি শুক্রবার সন্ধ্যায় শহরের এক অডিটরিয়ামে শিয়া সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে প্রবেশ করেই গুলি করতে শুরু করেন। পরে পুলিশের গুলিতে তিনি মারা যান।

এদিকে লন্ডনের ‘দা ইনডিপেন্টেন্ট’ পত্রিকাটি জানিয়েছে, ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একটি সুন্নী চরমপন্থি গোষ্ঠী এই হামলার দায় শিকার করেছে। ‘বাহরাইন প্রভিন্স’ নামের ওই গোষ্ঠী অনলাইনে প্রচারিত এক বিবৃতিতে বলেছে, শুজা আল দোসারি নামের ওই বন্দুকধারী হামলায় কলাসনিকভ রাইফেল ব্যবহার করেছিলেন। তারা তার প্রশংসা করে আরো জানিয়েছে,‘তারা মুশরিকদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান বানচাল করে দিয়েছে।’

চলতি বছর সৌদি আরবে এ নিয়ে ইসলামিক স্টেটের(আইএস) তিনটি শাখার উদ্ভাব হল। এর আগে আরো দুটি শাখা দেশটিতে দুটি ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার দায় স্বীকার করেছিল। সৌদি আরবে শিয়া ও নিরাপত্তা পরিষদের ওপর চালান হামলায় প্রায় ৭০ জন নিহত হয়েছিল। গত আগস্টের হামলায় নিহত হয়েছিল আরো ১৫ জন।