মেইন ম্যেনু

স্ত্রীর অধিকারের দাবিতে দু’দিন ধরে স্বামীর বাড়িতে তরুণীর অনশন

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা: চাওয়া একটিই স্বামী তাকে ঘরে তুলে নিক। বউমা বলে ডাকুক শ্বশুরবাড়ির লোকজন। শুধু এ দাবি পূরণের জন্য বাবার বাড়ি ছেড়ে লজ্জা-সঙ্কচ ঝেড়ে ফেলে গত সোমবার সকাল থেকে বসে আছেন স্বামীর বাড়ির সামনে। কিন্তু কারো কোন সাড়া পাচ্ছেন না।

নওগাঁর আত্রাই উপজেলার তারাটিয়া গ্রামের রেজাউল করিমের বাড়ির আঙিনায় গিয়ে দেখা যায় এ দৃশ্য। মোছাঃ রিভা আক্তার (২০) নামের প্রতারিত তরুণীর স্ত্রীর অধিকার আদায়ের দাবিতে স্বামীর বাড়িতে দুই দিন যাবৎ অনশন করছে। রিভা আক্তার পার্শ্বতী রাণীনগর থানার খট্টেশ্বর গ্রামের মৃত বেলাল ঠিকাদারের মেয়ে।

স্থাণীয় সূত্রে জানা গেছে, আত্রাই উপজেলার তারাটিয়া গ্রামের মৃত আব্দুস ছালেক এর ছেলে মোঃ রেজাউল করিম (বেদেনা) (৫৫) ইসলামী শরিয়ত সম্মতভাবে ২০১৫ সালের ২১ ডিসে¤বর রিভা আক্তার কে দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে বিয়ে করলেও বর্তমানে প্রতারক রেজাউল করিম স্ত্রীর মর্যদা দিতে অস্বীকৃতি জানায় এবং রিভা আক্তার কে তালাক দিয়েছে বলে জানায়। পরে রিভা আক্তার গত সোমবার থেকে রেজাউলের বাড়িতে আমরণ অনশন শুরু করে। বর্তমানে প্রতারক রেজাউল পলাতক রয়েছে। নিরুপায় রিভার করুণ আর্তনাতে গ্রামের সাধারণ মানুষের মাঝে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এঘটনায় স্থাণীয় ভাবে গত সোমবার ও মঙ্গলবার দিনভর দফায় দফায় দেন-দরবার করেও কোন সুরহা করতে না পারায় স্থানীয়রা আত্রাই থানা পুলিশকে খবর দিলে আত্রাই থানা পুলিশের এস আই মোঃ মোস্তফা কামাল ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।

স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবি আদায়ের জন্য অনশনরত তরুণী রিভা আক্তারের সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমার স্বামীর পূর্বের স্ত্রী তাহাকে তালাক দিয়ে অন্য যায়গায় বিবাহ করে ঘর সংসার করছে তাহার গর্ভের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। সে সন্তানকে দেখা শোনা করার জন্য পারিবারিক ভাবে অনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে আমাকে বিবাহ করে। আমি গত ৩১শে মার্চ তারিখে এইচ এস সি পরিক্ষা দেয়ার জন্য আমার বাবার বাড়িতে যায়। গত সোমবার বাবার বাড়ি থেকে আমার মা কে সাথে নিয়ে স্বামীর বাড়িতে আসিলে আমার স্বামী রেজাউল করিম আমাকে তালাক দিয়েছে বলে মৌখিক জানান। এবং আমাকে বাড়িতে প্রবেশে বাধা সৃষ্টি করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। তাই স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি পেতে অনশনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। স্বামীর কাছ থেকে স্ত্রীর অধিকারের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাব।

এ প্রসঙ্গে রেজাউল করিম (বেদেনা) সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ফোন বন্ধ থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এব্যাপারে সাবেক ইউপি সদস্য মোঃ নজরুল ইসলাম ফটিক জানান, অনেক চেষ্টা করেও বিষয়টি নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয়নি। এখন পর্যন্ত স্বামীর অধিকারের দাবিতে মেয়েটি রেজাউলের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

এ বিষয়ে আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ বদরুদ্দোজা জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি এবং প্রায়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয় হবে।



« (পূর্বের সংবাদ)