মেইন ম্যেনু

স্ত্রীর মরদেহ নিয়ে বসবাস ৯০ বছরের বৃদ্ধের

কলকাতায় মানুষের কঙ্কাল নিয়ে তুলকালাম কাণ্ড ঘটেছে কিছুদিন আগেই। এবার এর ছায়া দেখা গেছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতেও। স্ত্রীর মরদেহ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছিলেন নব্বই বছরের এক বৃদ্ধ। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ-পূর্ব দিল্লির কালকাজি এলাকায়। সোমবার এ ঘটনাটি মানুষের নজরে এসেছে।

পুলিশ বলছে, এক প্রতিবেশী পুলিশে খবর দিয়ে জানায়, বৃদ্ধ গোবিন্দ রামের বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। তারপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তল্লাশি শুরু করে। বৃদ্ধ গোবিন্দ রাম মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন। স্ত্রী গোপী মারা গেলেও তিনি নিজেদের এক বেডরুমের ফ্ল্যাটে তাকে সঙ্গী করেই বসবাস করছিলেন।

স্ত্রীর মরদেহ মাটিতে পড়েছিল। গোবিন্দ রামকে খাট থেকে উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশ বলছে, বেশ কয়েকদিন আগেই গোপীদেবী মারা গেছেন। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হলেও প্রাথমিকভাবে অস্বাভাবিক কিছু মেলেনি। বৃদ্ধা দম্পতি চূড়ান্ত অবহেলার মধ্যে জীবনযাপন করছিলেন।

ময়নাতদন্তের রিপোর্ট সামনে এলেই বৃদ্ধার মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে। পুলিশ জানিয়েছে, বৃদ্ধ দম্পতির এক দূর সম্পর্কের আত্মীয়কে খবর দেওয়া হয়েছে গোবিন্দ রামকে দিল্লির এইমস হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা করা হচ্ছে। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, গত কয়েকবছর ধরেই স্ত্রী গোপী অসুস্থ ও শয্যাশায়ী ছিলেন। কয়েকদিন আগে স্ত্রী মাটিতে পড়ে গেলে আর ওঠেননি। তখনই গোপীদেবীর মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।