মেইন ম্যেনু

স্নাতক শেষে চাকরি খুঁজছেন? করুন এই ছোট্ট কাজগুলো

স্নাতকের আগ থেকে শুরু করে চাকরির ডাক আসার আগ পর্যন্ত প্রত্যেকটি মানুষের চিন্তাভাবনার একটা বড় জায়গা জুড়ে থাকে চাকরি আতঙ্ক। ভালো ফলাফল হবে তো? চাকরি পাব তো? বেকার হয়ে বসে থাকতে হবে না তো? না চাইতেও হাজারটা এমন ভয় মনের ভেতরে একটু একটু করে ধাক্কা দিয়ে যায় সবার খানিক পরপর। কিন্তু কেবল পরীক্ষায় ভালো ফলাফল আর চাকরির আবেদন করলেই কি চাকরি ধরা দেবে আপনার হাতের নাগালে? সোজাসুজি বলতে গেলে সেটা সত্যিই বর্তমান সময়ে অনেকটাই কষ্টকর আর অবাস্তব ব্যাপার। আর তাই স্নাতক শেষ করার পরপরই চাকরিতে প্রবেশের জন্যে যে ছোট ছোট কাজগুলো করা আপনার ক্যারিয়ারের জন্যে একান্তই দরকার দেখে নিন সেগুলোকে।

১. লিঙ্কডইন প্রোফাইল খোলা

বর্তমানে লিঙ্কডইন চাকরি ও চাকরিদাতাদের সাথে যোগাযোগের বেশ চমত্কার একটি মাধ্যম হয়ে দাড়িয়েছে ( ফোর্বস )। দরকারী কর্মীকে খুঁজতে অনেকেই বর্তমানে লিঙ্কডইনের ওপর নির্ভর করে থাকেন। আর তাই নিজের একটি লিঙ্কডইন প্রোফাইল খুলে ফেলুন আর তাতে নিজের কাজের জায়গা ও পারদর্শীতার কথা সবাইকে জানান।

২. ভালোমানের সিভি তৈরি

একজন চাকরিদাতা আপনাকে কিন্তু প্রথমে দেখবেন না। দেখবেন আপনার সিভি বা কারিকুলাম ভিটাকে। এমন ঘটনা কিন্তু খুব একটা কম নয় যে, অনেকেই অনেক বেশি যোগ্য আর পারদর্শী হওয়ার পরেও কেবল ভালোমানের একটি সিভির অভাবেই একটা ভালো চাকরি পাননি। আর তাই দক্ষদের সহায়তায় তৈরি করুন নিজের পুরোপুরি ঠিকঠাক একটি সিভি। কে জানে, হতে পারে এই একটা সিভিই খুলে দিতে পরে আপনার ভাগ্যকে ( ক্যারিয়ার মাইনার )!

৩. শিক্ষানবীশ হিসেবে কাজ করা

পড়াশোনার সময় থেকেই শিক্ষানবীশ হিসেবে খুব বেশী না হলেও অন্তত একটি জায়গা থেকে কাজ করা উচিত। এতে করে চাকরির বাজারে বেড়ে যাবে আপনার মূল্য অনেক বেশি পরিমাণে। আর এক্ষেত্রে ইন্টার্নের পরিমাণ যত বেশি হয় ততই ভালো ( ফোর্বস )। তবে চেষ্টা করবেন সাধারন স্থানে শিক্ষানবীশ হিসেবে কাজ শেখার পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী পরিচিত কোন প্রতিষ্ঠান থেকেও ইন্টার্ন করার। এতে করে গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে আপনারই।

৪. পরিচয় বাড়ানো

কখনোই এটা ভেবে নেবেননা যে আপনার প্রথম চাকরিই আপনার জীবনের বাকী সবটা সময়কে তুলে ধরবে। প্রথম করা চাকরিতে মানুষ এমনিতেও খুব বেশি সময় কাজ করতে চায়না ( দি গার্ডিয়ান )। তবে একান্তই নিজের স্বপ্নের চাকরি না পেলে এবং সেটার জন্যে অপেক্ষা করতে চাইলে একেবারে বসে না থেকে মধ্যবর্তী সময়টুকুতে চেষ্টা করুন অন্যকোন জায়গায় ঢুকে যেতে। হতে পারে সেটা কোন পত্রিকা অফিস কিংবা কোন মাল্টিন্যাশনাল ফার্ম। এতে করে আপনার অভিজ্ঞতা তো বাড়বেই, সেই সাথে বাড়বে পরিচিতি। আর কে জানে, এরকম কোন পরিচয়ের মাধ্যমেই হয়তো ভালো কোন চাকরি পেয়ে যেতে পারেন আপনি।