মেইন ম্যেনু

স্পিডগানের ভুলে ‘গতি দানব’ ওয়াগনার!

ডানেডিনে সিরিজের প্রথম টেস্টে শ্রীলংকার প্রথম ইনিংস চলার সময়ের ঘটনা সেটা। ব্যাটিং প্রান্তে ছিলেন দীনেশ চান্দিমাল, আর বোলিংয়ে মাত্রই নিজের দ্বিতীয় ওভারটি করছেন নিউজিল্যান্ড পেসার নেইল ওয়াগনার। ওভারের চতুর্থ বলটিতে বেশ চমৎকার একটি ইয়র্কার ছুড়লেন ওয়াগনার। চোখের দেখায় সেই বলের গতিকে ওয়াগনারের অন্যসব ডেলিভারির মতোই মনে হয়েছিল। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে স্পিডগান সেই বলের গতি দেখায় ১৬০ কি.মি/ঘন্টা!

ওয়াগনার সাধারণত ১৩০ কি.মি গতিসীমার মধ্যেই বল করেন, তাই তার হাত থেকে এত দ্রুতগতির বল বের হতে দেখাটা একরকম আশ্চর্য্যজনক ব্যাপারই ছিল। তবে আশ্চর্য্যের উপকরণ এখানেই শেষ হয়নি। পরবর্তীতে বুঝা যায়, কারিগরী ত্রুটির কারণেই ওয়াগনারের সাধারণ ডেলিভারিকে ‘অসাধারণ’ গতির ডেলিভারি হিসেবে প্রদর্শন করে স্পিডগান।

সিরিজ সম্প্রচারের দায়িত্বে থাকা স্কাই প্রোডাকশনের এক কর্মকর্তা দাবী করেন, ‘সম্ভবত কোন চিল হয়তো বেশ নিচ দিয়ে উড়ার সময় স্পিডগানের সামনে দিয়ে গিয়েছিল। এ কারণেই স্পিডগান সেই বলটির এরকম ভুল গতি দেখিয়েছে।’

অবশ্য সেটা ছাড়া আর একটি যে সম্ভাবনার কথা তিনি বলেছেন, সেটি হচ্ছে মাঠে লেজার বিমের উপস্থিতি।

ওয়াগনারের সেই বল নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্রিকেট ভক্তদের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক ভালোই জমেছিল। তবে নিজের ১৭ টেস্ট ম্যাচের ক্যারিয়ারে ওয়াগনার কখনোই এরকম ভয়ানক গতির আশেপাশেও কখনো বল করেন নি বলেই তাই ব্যাপারটাকে স্পিডগানের ভুল হিসেবেই মেনে নিচ্ছেন প্রায় সবাই।