মেইন ম্যেনু

স্বাধীনতাবিরোধীদের অপপ্রচারে জিএসপি বন্ধ

স্বাধীনতাবিরোধীরা অপপ্রচার চালিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে অগ্রাধিকার বাণিজ্য সুবিধা (জিএসপি) বন্ধ করেছে বলে অভিযোগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার বিকালে জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তরকালে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য এ কে এম রহমতউল্লাহর প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ অভিযোগ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এবার বিশ্বের ১২২টি দেশকে জিএসপি সুবিধা দিয়েছে, কিন্তু বাংলাদেশকে দেয়নি। বাংলাদেশের টেক্সটাইল ও তৈরি পোশাক ব্যতীত অন্যান্য পণ্য জিএসপি সুবিধার আওতায় যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে প্রবেশাধিকার ছিল। বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে রপ্তানিকৃত পণ্যের ৯০ শতাংশের বেশি হলো টেক্সটাইল ও অ্যাপারেল পণ্য। এ দেশে তৈরি পোশাক ও চিংড়ি খাত এবং ইপিজেডভুক্ত শিল্প কারখানায় শ্রমিক অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে এমন অভিযোগ করে গত ২৭ জুন ২০১৩ তারিখে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জিএসপি সুবিধা স্থগিত করে।

জিএসপি সুবিধা পুনর্বহাল করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশ সরকারকে বিভিন্ন শর্ত সংবলিত ‘বাংলাদেশ অ্যাকশন প্ল্যান-২০১৩’ বাস্তবায়নের পরামর্শ দেয়।

প্রধানমন্ত্রী ওই অ্যাকশন প্ল্যানের শর্তগুলোও তুলে ধরেন।

জিএসপি সুবিধা ফিরে পাওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে এ লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী সরকারের বিভিন্ন গৃহীত পদক্ষেপ তুলে ধরে বলেন, গত ১৫ নভেম্বর ২০১৩, ১৫ এপ্রিল ২০১৪, ১৬ নভেম্বর ২০১৪ তারিখে ওই অ্যাকশন প্ল্যান বাস্তবায়নের অগ্রগতি ‘ইউনাইটেড স্টেটস ট্রেড রিপ্রেজেন্টেটিভ (ইউএসটিআর)’ বরাবর পাঠানো হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র সরকার অগ্রগতি পর্যলোচনাপূর্বক অ্যাকশন প্ল্যান বাস্তবায়নের অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করে চলমান কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার তাগিদ দেয়।

এছাড়া বিভিন্ন মাধ্যমে কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি সময়ে সময়ে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে অবহিত করা হচ্ছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।