মেইন ম্যেনু

স্বামীর বাড়ির সামনে তরুণীর অনশন!

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ): ‘প্রায় পাঁচ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্কের পরে বছর দুয়েক আগে আমাদের বিয়ে হয়। প্রেমিক রাজীব সরকার আমাকে আদালতে নিয়ে গিয়ে গোপনে বিয়ে করে। বিষয়টি একান্ত ঘনিষ্ঠজনদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। বিয়ের পরে ময়মনসিংহ শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে থেকেছি। তখন রাজীব বলতো, আগে প্রতিষ্ঠিত হই, তারপর তোমাকে আমাদের বাড়িতে তুলে নিব। কিন্তু গত এক মাস ধরে রাজীব আমার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে। পরে জানতে পারলাম, সে অন্যত্র বিয়ের চেষ্টা করছে। আর আমাকে বিয়ে করার বিষয়টি পরিবারের কাছে অস্বীকার করছে।’

ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌর শহরের স্টেশন রোড এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের এক তরুণী বলছিলেন এসব কথা।

স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবি আদায়ের জন্য ওই তরুণী পৌর শহরের বাড়িওয়ালাপাড়ায় স্বামী রাজীব সরকার রাজুর বাড়ির আঙিনায় সোমবার সকাল থেকে অনশন শুরু করেছেন।

অনশনরত তরুণী দাবি করে বলেন, ‘আমার কাছে বিয়ের প্রমাণ আছে। তাই স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি পেতে অনশনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। স্বামীর কাছ থেকে স্ত্রীর অধিকারের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাব।’

এদিকে, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে খবরটি ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক মানুষের ভিড় বাড়তে থাকে। এরপরেও তরুণী তার সিদ্ধান্তে অটল থাকেন। সন্ধ্যা সাতটা অবধি শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের অনেকেই তাকে বাড়ি ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করে ব্যর্থ হয়েছেন।

নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক রাজীবের এক প্রতিবেশি জানান, রাজীবের স্ত্রী দাবিদার মেয়েটি বাড়িতে এসে অনশন করতে পারে- এমন খবর পেয়ে সকাল বেলাতেই রাজিবের পরিবার বাড়ি ঘরে তালা দিয়ে অন্যত্র চলে গেছে।

গৌরীপুর পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান বলেন, বিষয়টি নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে হিন্দু সম্প্রদায়ের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা আলোচনা করেছেন। কিন্তু সমাধানে আসতে পারেননি। এ কারণে সোমবার তরুণী অবস্থান নিয়ে অনশন করছে বলে খবর পেয়েছি।

এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য রাজীব সরকারের মুঠোফোনে চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

গৌরীপর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাউসার আজিজ বলেন, বরের বাড়িতে তরুণী অনশন করছে- এ খবর পেয়ে আমাদের পাঠানো প্রতিনিধি মেয়েটিকে অনশন ভাঙার জন্য বুঝিয়ে শুনিয়ে এসেছে। কিন্তু ছেলে বা তার পরিবারের কাউকে না পাওয়ায় বিষয়টি নিয়ে কোনো সমাধানে পৌঁছানো যায়নি।