মেইন ম্যেনু

স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রচলিত বিশ্বাস যা সম্পূর্ণ ভুল

সব সময় যা শুনে থাকেন তার সবই বিশ্বাস করতে পারেন না। ইন্টারনেটসহ মানুষের মুখে মুখে শত শত গুজব ছড়িয়ে থাকে। একই ঘটনা ঘটে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয়ে। স্বাস্থ্য সচেতনরা সব সময় নিজের যত্নআত্তির নানা উপায় খুঁজতে থাকেন। বিভিন্ন উৎস থেকে জানতে চান। কিন্তু বহুদিন ধরে প্রচলিত হয়ে আসা কিছু ভুল তথ্য নিয়ে বিপাকে পড়েন তারা। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন এমনই ৮টি ভুল তথ্য যাতে মানুষের অগাধ বিশ্বাস।

১. অনেকেই টানা বেশ কয়েক দিন ব্যায়াম করেন। তারপর হঠাৎ করেই ব্যায়াম ছেড়ে দেন। এতে কিছুটা মোটা হয়ে যায় মানুষ। বলা হয়, ব্যায়াম ছেড়ে দিলে বাড়তি পেশি চর্বিতে রূপান্তরিত হয়। এটা ভুল তথ্য। পেশি ভিন্ন ধাঁচের টিস্যু। এরা অন্য কিছুতে রূপান্তরিত হয় না।

২. অনেকেই বলেন, হাত থেকে খাবার পড়ে গেলে তা ৫ সেকেন্ডের মধ্যে উঠালে আবার নিশ্চিন্তে খাওয়া যায়। অযৌক্তিক একটা কথা। মাটি বা যেকোনো স্থানে খাবার পড়ামাত্রই তাকে ব্যাকটেরিয়া ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই পড়ে যাওয়া খাবার স্বাস্থ্যের জন্যে হুমকি।

৩. মাথায় দু-একটা পাকা চুল থাকা স্বাভাবিক বিষয়। অনেকে বলেন, এটি তুলতে হয় না। একটা পাকা চুল তুলে ফেলা মানে আবারো এক-দুইটা বাড়তি গজাবে। অথচ তা মোটেও সত্য নয়। চুল পাকে জেনেটিক কারণে। একটি তোলার কারণে নয়।

৪. হাত-পায়ের আঙুলে জড়তা চলে আসলে তা ফোটাতে বেশ আরাম লাগে। মানুষের মনে ভয় যে, এটি বেশি বেশি করলে আর্থ্রাইটিস হয়। গবেষণায় এর কোনো প্রমাণ মেলেনি। বহুকাল ধরে আঙুল ফোটান এমন মানুষের মাঝে আর্থ্রাইটিস দেখা যায়নি। তবে গবেষণায় দেখা গেছে, তারা হাতের আঙুল ফোটান তাদের পাঞ্জা দুর্বল হয়। আবার হাতের তা তালু ও আঙুল কিছুটা ফুলেও যেতে পারে।

৫. বহু মানুষের বিশ্বাস, চুইং গাম খেয়ে ফেললে তা হজম করতে ৭ বছর সময় লাগে। কিন্তু চুইং গাম কখনো হজম হয় না। এটা দেহের বাড়তি জঞ্জালের মতোই বের হয়ে যাবে। কাজেই চিন্তা নেই।

৬. ওজন কমানোর চেষ্টায় যারা অস্থির তারা বেশি বেশি পানি খাওয়াকে একটা অন্যতম উপায় বলে বিশ্বাস করেন। বহু বিশেষজ্ঞের মতে, ওজন কমানোর জন্যে পানি কোনো কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে না। তবে চিনিপূর্ণ পানীয় যদি বাদ দিতে পারেন তবে ওজন কিছুটা কমবে বৈকি।

৭. একটা ধারণা প্রচলিত হয়ে আসছে যে, স্তন ক্যান্সার হলে কোনো ধরনের পিণ্ড তৈরি হয়। এক গবেষণায় বলা হয়, ১০ শতাংশ স্তন ক্যান্সারে কোনো লক্ষণসূচক পিণ্ড বা টিউমার দেখা যায় না। কাজেই স্তনে ক্যান্সার হতে হলে সেখানে বাড়তি মাংসের পিণ্ড থাকবে বা কোনো অংশের স্ফীতি ঘটবে তা বলা যায় না।

৮. সকাল সকাল যারা কাজে বেরিয়ে যান তাদের ব্যায়ামটা রাতেই করতে হয়। কিন্তু সংশ্লিষ্ট প্রশিক্ষকদের অনেকেই মনে করেন, রাতের ব্যায়াম ঘুম নষ্ট করে। অথচ বিপরীতটাই ঘটে। ব্যায়ামের পর দেহ ক্লান্ত হয়। এতে ঘুম আরো গভীর হতে পারে।