মেইন ম্যেনু

স্বেচ্ছায় চাকরি ছেড়ে নিখোঁজ কর্ম-কমিশন কর্মকর্তা

স্বেচ্ছায় চাকরি ছেড়ে দিয়ে নিখোঁজ রয়েছেন বাংলাদেশ সরকারি কর্ম-কমিশনের রংপুর অঞ্চলের সহকারী পরিচালক মশিউর রহমান (৩০)। চার মাসেরও বেশি সময় ধরে তিনি নিখোঁজ থাকায় অবশেষে শুক্রবার দুপুরে রংপুর কোতোয়ালী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন তার বাবা সহিদ আলী।

সম্প্রতি দেশে একের পর এক জঙ্গি হামলা ও নিখোঁজ ব্যক্তিদের নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ছেলের সন্ধানে থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেন তিনি। পারিবারিক মনোমালিন্যকে ঘিরে ছেলে নিখোঁজ হয়েছেন বলে এতদিন দাবি করলেও সাম্প্রতিক সময়ে দেশব্যাপী জঙ্গি উত্থানের ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন মশিউরের বাবা সহিদ আলী।

বাবা সহিদ আলী জানান, সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর এলাকায় তাদের আদি নিবাস। বর্তমানে ঢাকার উত্তরা মডেল টাউন এলাকায় স্বপরিবারে বসবাস করছেন তিনি। চার ছেলের মধ্যে নিখোঁজ মশিউর তৃতীয়। মশিউরের স্ত্রীও সরকারি চাকরিজীবী। তিনি চাঁদপুরে কর্মরত আছেন। তাদের সাড়ে তিন বছর বয়সের এক মেয়ে ও দেড় বছরের এক ছেলে সন্তান রয়েছে।

ছোট বয়স থেকেই সৎ ও ধার্মিক প্রকৃতির মশিউর তার স্ত্রীর চাকরি করার বিষয়টা মেনে নিতে পারেননি। এছাড়া পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে তার মনোমালিন্য চলছিল। রংপুরে সরকারি কর্ম-কমিশন কার্যালয়ে সহকারী পরিচালক পদে কর্মরত থাকা অবস্থায় গত ১২ মার্চ স্বেচ্ছায় চাকরি থেকে অব্যাহতি নিয়ে নিখোঁজ হয়ে যায় মশিউর।

বিষয়টি পরবর্তীতে তার অফিস থেকে জানতে পেরে সম্ভাব্য সব জায়গায় খোঁজ-খবর করেও মশিউরের সন্ধান মেলেনি। সাম্প্রতিক সময়ে নিখোঁজ ব্যক্তিদের নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বৃদ্ধি পাওয়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে তিনি থানায় ডায়েরি করেছেন বলেও জানান।

এদিকে, নাম প্রকাশে না করা শর্তে কর্ম-কমিশন রংপুর আঞ্চলিক অফিসের এক কর্মকর্তা জানান, গত ২০১৪ সালের ১২ অক্টোবর মশিউর রহমান সহকারী পরিচালক পদে রংপুরে যোগদান করেন। এর আগে তিনি ঢাকা ও রাজশাহীতে কর্মরত ছিলেন।

ওই কর্মকর্তা আরো জানান, নিখোঁজ হওয়ার পর মাঝে মাঝে অফিসের লোকজনদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করতেন মশিউর। সর্বশেষ গত ২৮ জুন তিনি অফিসের একজনের কাছ থেকে ধার নেয়া টাকা পরিশোধ করেছেন। এরপর থেকে আর কারও সঙ্গে তার যোগাযোগ হয়নি।

সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করার বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম জাহিদুল ইসলাম জাগো নিউজকে জানান, নিখোঁজ মশিউরের বিষয়ে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।