মেইন ম্যেনু

স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে এই খাবারগুলো

সুস্বাস্থ্যের জন্য পুষ্টিকর খাবার যেমন প্রয়োজন তেমনি মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধিতে খাবারের ভূমিকা রয়েছে। আধুনিক জীবনে কম বেশি সবাই স্মৃতিশক্তি হীনতায় ভুগে থাকেন। এই স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধির জন্য কোন ওষুধ নেই যে খাওয়ার সাথে সাথে তা বৃদ্ধি পেয়ে যাবে। তবে খাবারের সাথে মনোযোগের একটি সম্পর্ক রয়েছে। কিছু খাবার আছে যা আপনার মনোযোগ বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে। এমন কিছু খাবারের নাম নিয়ে আজকের এই ফিচার।

১। আখরোট

আখরোট স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করে চিন্তা করার ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। অন্য সকল বাদামের চেয়ে আখরোটে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে। যা মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। প্রতিদিন এক মুঠো করে আখরোট খাওয়ার চেষ্টা করুন।

২। কফি

ক্লান্তি দূর করতে এক কাপ কফি যথেষ্ট। এই কফি মনোযোগ বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। কফিতে ক্যাফেইন নামক উপাদান আছে যা রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণ ঠিক রেখে কাজে মনোযোগ বৃদ্ধি করে।

৩। গ্রিন টি

University of Basel গবেষণায় দেখেছে যে, গ্রিন টিয়ের নির্যাস মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করে। যারা নিয়মিত গ্রিন টি পান করেন তাদের কাজের মনোযোগ যারা দুধ চা পান করেন তাদের থেকে বেশি হয়ে থাকে। প্রতিদিন এক থেকে দুই কাপ গ্রিন টি পান করার চেষ্টা করুন।

৪। বিট

মনোসংযোগ বৃদ্ধিতে বিট অতুলনীয়। বিট রক্ত সঞ্চালন বজায় রাখে। মস্তিষ্কে অক্সিজেন প্রবাহ সচল রাখে। প্রতিদিনকার খাদ্য তালিকায় বিটের সালাদ বা তরকারি রাখুন। এটি আপনার মনোযোগ বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

৫। ব্রকলি

ব্রকলিতে choline নামক উপাদান রয়েছে যা স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে অপরিহার্য। এটি নতুন কোষ তৈরিতে সাহায্য করে মনোযোগ বৃদ্ধি করে। এক কাপ ব্রকলি খাদ্য তালিকায় রাখুন। সপ্তাহে তিনবার এটি খাওয়ার চেষ্টা করুন। এটি আপনার স্মৃতিশক্তি দ্রুত বৃদ্ধি করবে।

৬। ডার্ক চকলেট

ডার্ক চকলেট নার্ভকে রিল্যাক্স করে উত্তেজনা কমিয়ে থাকে। যা কাজে মনোযোগ দিতে সাহায্য করে। প্রতিদিন এক টুকরো ডার্ক চকলেট খেলে তা আপনার মনোযোগ বৃদ্ধি করে থাকবে।

৭। টমেটো

টমেটোতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট লাইকোপিন কোষকে ক্ষতি হওয়া থেকে রক্ষা করে। যারা নিয়মিত টমেটো খেয়ে থাকেন তাদের স্মৃতিশক্তি যারা টমেটো খান না তাদের থেকে বেশি হয়। এছাড়া টমেটো ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস করে।

৮। পানি

শরীর সুস্থ রাখার জন্য প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করা উচিত। পানি মস্তিষ্কে শক্তি প্রাদান করে থাকে। যার কারণে মস্তিষ্ক সঠিকভাবে কাজ করতে পারে। এটি স্মরণশক্তি বাড়িয়ে চিন্তা করার ক্ষমতা বৃদ্ধি করে থাকে।

এছাড়া পালং শাক, সার্ডিন, অলিভ অয়েল ইত্যাদি খাবার স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।