মেইন ম্যেনু

স্মৃতিসৌধে শি জিনপিংয়ের শ্রদ্ধা

সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে গিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানালেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

শনিবার সকাল ৯টা ৮ মিনিটে জাতীয় স্মৃতিসৌধে যান তিনি। সেখানে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। পরে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন তিনি। এ সময় বিউগলে বেজে উঠে করুন সুর। শহীদ বেদিতে ফুল দেওয়ার পর স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে একটি গাছের চারা রোপণ ও পরিদর্শক বইয়ে স্বাক্ষর করেন শি জিনপিং। এ সময় তার সফর সঙ্গীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকাল ৮টা ২০ মিনিটে রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেল থেকে স্মৃতিসৌধের উদ্দেশে রওনা হন তিনি। প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং স্মৃতিসৌধে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন ও সেনাবাহিনীর নবম পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান।

দুদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে শুক্রবার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান শি জিনপিং। বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

এদিন বেলা ৩টায় কড়া নিরাপত্তায় সুসজ্জিত গাড়িবহরে শি জিনপিং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছান। সেখানে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শি জিনপিং দুই দেশের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন। পরে শি জিনপিং ও শেখ হাসিনার উপস্থিতিতেই স্বাক্ষরিত হয় সহযোগিতার ২৭টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক। চুক্তি সইয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন- সফল এই সফরে নতুন উচ্চতায় পৌঁছাল দুদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক।

সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধ এলাকা ত্যাগ করেন শি জিনপিং। সেখান থেকে বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওনা হন তিনি। আজ সকাল ১০টায় শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে তার ভারতের উদ্দেশে রওনা হওয়ার কথা। বিমানবন্দরে তাকে বিদায় জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।