মেইন ম্যেনু

হজে পাথর নিক্ষেপের সময়সূচি

হজের কার্যক্রমকে সুন্দরভাবে ধারাবাহিকতা রক্ষা করে আদায় করা ওয়াজিব। এর মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে জামারায় কংকর বা পাথর নিক্ষেপ করা। হজ এবং ওমরাহ মন্ত্রণালয় এ ক্ষেত্রে হজযাত্রীদের যথা সময়ে নিজেদের ক্যাম্প থেকে যাত্রা করার জন্য সতর্ক করে দিয়েছে। নির্ধারিত সময়ের আগে বা পরে পাথর নিক্ষেপ করা হজের নিয়ম বহির্ভূত হবে। এতে করে হজ যথাযথভাবে আদায় হবে না।

১০ জিলহজ সকাল ৬টা থেকে সাড়ে ১০টা এবং ১১ তম দিনে দুপুর ২টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই আনুষ্ঠানিকতা বন্ধ থাকবে। এছাড়া ১২তম দিনে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত অর্থাৎ সাড়ে তিন ঘণ্টার মত এই আনুষ্ঠানিকতা বন্ধ থাকবে।

তুরস্ক, ইউরোপ, আমেরিকা এবং অস্ট্রেলিয়ার হজযাত্রীদের জন্য তাওয়ায় এবং জামারায় পাথর নিক্ষেপের সময়সূচি আলোচনা করতে গিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব হুসেইন আল শরিফ, বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা এবং বিশেষজ্ঞের একটি বৈঠকে এই নতুন নিয়ম নীতি জানানো হয়েছে। হজযাত্রীদের জন্য হজ প্রক্রিয়া আরো সহজ করতেই এসব নিয়মনীতি আলোচনা করা হয়।

হজের সময় ভিড় এড়াতে এবং হজযাত্রীদের নিরাপদে তাদের ক্যাম্পে ফিরে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতেই ওই বৈঠকের আয়োজন করা হয়। এটি একটি জাতীয় মিশন যার মধ্যে সবাই অন্তর্ভূক্ত থাকবে। অর্থাৎ প্রত্যেক দেশের হজযাত্রীকেই এই নিয়মনীতি পালন করতে হবে।

হুসেইন আল শরিফ বলেছেন, এই বৈঠকের প্রাথমিক লক্ষ্য হচ্ছে হজ যাত্রীদের হজের আনুষ্ঠানিকতা যথাযথভাবে পালন করা এবং আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদের ক্যাম্পে নিরাপদে ফিরে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা। সকল হজযাত্রী এই নিয়মনীতি অনুসরণ করলে ভিড় এড়ানো সম্ভব হবে। এতে করে দুর্ঘটনা ঘটারও কোনো সম্ভাবনা থাকবে না। তাই সব হজযাত্রীকে এ বিষয়ে সতর্ক থেকে নিরাপত্তাকর্মীদের কাজকে আরো সহজ করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

এদিকে, আরো একটি সমন্বয় কমিটি জানিয়েছে, হজযাত্রীরা চূড়ান্ত হজের আনুষ্ঠানিকতার আগে তাওয়াফ আল কুদুমে কোনো ধরনের আনুষ্ঠানিকতায় অংশ নিতে পারবেন না।