মেইন ম্যেনু

হঠাৎ মৃত্যু হলো, ফিক্সড ডিপোজিটের টাকার ঝামেলা সারবেন কীভাবে?

যেকোনো সময়ই যে কারো মৃত্যু হতে পারে৷ স্থায়ী আমানত বা ফিক্সড ডিপোজিটে টাকা রাখার প্রবণতা তো অনেকেরই থাকে৷ কিন্তু ফিক্সড ডিপোজিট হোল্ডারের হঠাৎ মৃত্যুতে সেই টাকা পেতে মুশকিলে পড়তে পারেন ওই ব্যক্তির পরিবার বা দাবিদাররা৷

এ বিষয়ে সতর্ক থাকা উচিত, জেনে নেয়া দরকার এমন পরিস্থিতিতে কেমন করে হতে পারে মুশকিল আসান৷

প্রথমত মৃত্যুর পর যাতে পরিবার বা সঙ্গীর সেই টাকা পেতে অসুবিধা না হয় তার জন্য সেই স্থায়ী আমানতে অন্য কারো নাম ‘জয়েন্ট হোল্ডার’ হিসেবে নথিভুক্ত করা দরকার৷ এমন পরিস্থিতিতে সেই জয়েন্ট হোল্ডার সংশ্লিষ্ট কোম্পানি বা ব্যাংককে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর খবর জানিয়ে তার ডেথ সার্টিফিকেট জমা করা উচিত৷

এরপর সেই ফিক্সড ডিপোজিট থেকে মৃত ব্যক্তির নাম মুছে দেয়া হয় এবং তখন বাকি জয়েন্ট হোল্ডাররা আমানতের টাকা পেতে পারবেন৷ সেজন্য ফিক্সড ডিপোজিট করার সময় একক বা সিঙ্গল নামে না করে একাধিক লোকের নামে তা করে রাখা উচিত ৷ কারণ যাতে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পর সেই টাকা অন্যদের তুলতে অসুবিধা না হয়৷

দ্বিতীয়ত যদি অন্য কারো সঙ্গে জয়েন্ট হোল্ডিং না করে একক বা সিঙ্গল নামে ফিক্সড ডিপোজিট করা হয়, তখন অবশ্যই কাউকে ‘নমিনি’ করে যাওয়া একান্ত জরুরি৷ কারণ নমিনি করা থাকলে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পর সেই টাকা নমিনি পেতে পারবে৷

তৃতীয়ত, একক বা সিঙ্গল নামে থাকা ফিক্সড ডিপোজিটে কোনো নমিনি না করা থাকলে সেক্ষেত্রে টাকা পাওয়ার ক্ষেত্রে জটিলতা বাড়বে৷ কারণ সেক্ষেত্রে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পর তার পরিবার বা যারা দাবিদার তাদের সেই টাকা পাওয়ার জন্য মৃত ব্যক্তির উইল থাকা প্রয়োজন৷ তা যদি না থাকে তাহলে দাবিদার বলে সাকসেনশন সার্টিফিকেট জমা দেয়ার দরকার পড়বে৷