মেইন ম্যেনু

হত্যা মামলায় খালাস পেলেন সাবেক প্রেসিডেন্ট মোশাররফ

পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফকে ২০০৬ সালে বিদ্রোহী দলের নেতা বুগতি হত্যা মামলায় অব্যহতি দিয়েছে পাকিস্তানের একটি আদালত। নওয়াব আকবর বুগতি নামের ঐ বিদ্রোহী দলের নেতাকে বেলুচিস্তানের একটি সামরিক অভিযানের সময় হত্যা করা হয়।

পারভেজ মোশাররফের উপরে এখনো অন্যান্য আরও অভিযোগ রয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে ২০০৭ সালে বেনজীর ভুট্টো গুপ্তহত্যা মামলা এবং ২০০৭ সালে জরুরী অবস্থার জারি করার জন্য বিশ্বাসঘাতকতার মামলা। সাবেক এই সামরিক শাসক অভিযোগ করেছেন, তার বিরুদ্ধে দায়ের করা এই সব মামলাই রাজনৈতিক চক্রান্ত থেকে করা হয়েছে।

বালোচ ন্যাশ্নালিস্ট দলের নেতা বুগতি তৎকালীন পাকিস্তানি শাসক মোশাররফের স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে একটি সশস্ত্র প্রচারণা করেছিলেন। এরপর ২০০৬ সালের আগস্ট মাসে সামরিক প্রধান মোশাররফের নির্দেশে সামরিক অভিযান চলাকালে বুগতিকে একটি গুহার মধ্যে হত্যা করা হয়।

পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের রাজধানী কুয়েট্টার একটি সন্ত্রাস বিরোধী আদালত মোশাররফকে এই মামলা থেকে অব্যহতি দিয়েছে। মোশাররফের একজন মুখপাত্র সংবাদ সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছে, এই রায়ে মোশাররফ খুবই আনন্দিত।

তবে বিচারপ্রক্রিয়ার উকিল সোহেইল রাজপুত সংবাদ মাধ্যম বিবিসিকে বলেছেন, তারা এই রায়ের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে আবার আপিল করবেন। এদিকে নিহত নেতা বুগতির নাতি বুরহামদাগ বুগতি বিবিসিকে বলেছেন, ‘আদালতের উপরে আমার বিন্দুমাত্র বিশ্বাস নেই। পাকিস্তানে কেউই সুবিচার পায় না।’