মেইন ম্যেনু

হস্তান্তরের পর ঢাকার পথে নূর হোসেন

নারায়ণগঞ্জে আলোচিত সাত খুনের মামলার আসামি নূর হোসেনকে আজ রাতেই ভারত থেকে দেশে আনা হচ্ছে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতা থেকে আজ বিকালে নূর হোসেনকে নিয়ে পেট্টাপোল সীমান্তের দিকে রওয়ানা হয়েছে ভারতীয় পুলিশ।

রাত ১০টা নাগাদ নূর সোসেনকে বিএসএফের পক্ষ থেকে বিজিবির কাছে হস্তান্তরের কথা থাকলেও রাত নয়টার দিকেই নূর হোসেনকে বহনকারী গাড়ি পেট্টাপোল সীমান্তে এসে পৌঁছে।সেখানে এখন হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।ধারনা করা হচ্ছে রাত সাড়ে নয়টার মধ্যেই নূর হোসেনকে নিয় বিজিবি সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশ সীমান্তে ঢুককে।

এর আগে আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কাছে নূর হোসেনকে বুঝিয়ে দেয়া হয়।ভারতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তারা নূর হোসেনকে বুঝে নেন বলে পশ্চিমবঙ্গের থেকে একটি সূত্র জানিয়েছেন।ভারতীয় হাইকমিশন থেকেও খবরটি নিশ্চিত করা হয়েছে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের একটি সূত্র জানিয়েছে দমদম কারাগার থেকে নূর হোসেনকে নিয়ে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর একটি দল পেট্রাপোল সীমান্তের দিকে রওয়ানা দেয় সন্ধ্যার দিকে।গ্রেপ্তারের পর থেকে নূর হোসেনকে এই দমদম কারাগা্রেই রাখা হয়।

এদিকে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার ড. খন্দকার মহিদ উদ্দিন নূর হোসেনকে ফিরিয়ে আনার কথা স্বীকার করে বলেছেন, আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ‍গ্রেপ্তারি পরোয়ানা নিয়ে পুলিশের একটি বিশেষ দল বেনাপোলের দিকে রওয়ান দিয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, নূর হোসেনকে ভারত থেকে আনার ব্যাপারে সব ধরনের আইনগত জটিলতা শেষ হয়েছে। যেকোনো সময় তাকে ফিরিয়ে আনা হবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক যুগ্মসচিব বলেন, আজ রাতে নূর হোসেনকে দেশে ফিরে আনা হচ্ছে।এ জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং পরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বিজিপির একটি টিম একযোগে কাজ করছে।

তিনি আরো বলেন, আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে পশ্চিমবঙ্গের দমদম কারাগার থেকে নূর হোসেনকে নিয়ে ভারতীয় পুলিশ পেট্রাপোল বন্দরের দিকে রওনা হয়েছে। বিএসএফ বেনাপোল বন্দর দিয়ে তাকে বিজিবির কাছে হস্তান্তর করবে। পরে সেখান থেকে রাতেই সড়ক পথে তাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হবে।

উলফা নেতা অনুপ চেটিয়াকে ভারতের কাছে হস্তান্তরের এক দিন পরই নূর হোসেনকে ফেরত আনা হচ্ছে।বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় নূর হোসেনকে ফেরত আনার ব্যাপারে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছিল।

গত বছর নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের পর পালিয়ে ভারতে যায় নূর হোসেন। ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ধরা পড়ার পরে তার বিরুদ্ধে অবৈধ অনুপ্রবেশ ও অস্ত্র আইনে সেখানে মামলা হয়েছে।

গত বছর ২৭ এপ্রিল ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম ও আইনজীবী চন্দন কুমার সরকারসহ সাতজনকে অপহরণ করা হয়। এর তিন দিন পর ছয়জনের এবং পরদিন আরও একজনের লাশ শীতলক্ষ্যায় ভেসে ওঠে।

ঘটনার পর নজরুলের পরিবার নূর হোসেনের বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ আনলেও তখন পুলিশ নূর হোসেনকে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।ঢাকাটাইমস