মেইন ম্যেনু

হাঁসের জন্যও রাস্তা!

মানুষের চলাচলের জন্যই মানুষ রাস্তা বানায়। আর তা যদি হয় শহরের পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কোনো রাস্তা তাহলে তো বলা যায়ই যে রাস্তায় শুধু মানুষকেই মানায়। কিন্তু রাস্তায় যদি হাঁসও চলাচলের অনুমতি পায় তবে কেমন হবে? এটা কোনো হংসরাজ্যের কল্পকাহিনী নয়। আমি একবিংশ শতাব্দির একটি শিল্পোন্নত দেশের কথা বলছি যেখানে হাঁসের জন্যও রাখা হয়েছে মানুষ চলাচলের জন্য ব্যবহৃত একই রাস্তায় আলাদা লেন। সমুদ্রের বধূ খ্যাত ইউরোপের একটি অন্যতম শিল্পোন্নত দেশ যুক্তরাজ্য। যেখানে হাঁসের জন্যও আলাদা লেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

যুক্তরাজ্যে খাল ও নদী কল্যাণ ট্রাস্টের বিশেষ প্রচারণার অংশ হিসেবে শহরের ব্যস্ত রাস্তায় হাঁস চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মানুষ এবং হাঁসেরা পায়ে পা মিলিয়ে এখন হেঁটে যেতে পারবে নিজ নিজ গন্তব্যে।

রাস্তা

মানুষ চলাচলের রাস্তায় যেমন বিভিন্ন সংকেতের দাগ কাটা থাকে হাঁসের জন্য বরাদ্দ লেনেও তেমনি দাগ কাটা হয়েছে। সাদ এবং হলুদ রংয়ের এসব দাগ হাঁসদের তাদের গন্তব্য এবং চলার সীমানা নির্দেশ করবে। হাঁসের এই বিশেষ লেনের বিস্তৃতি হল তাদের থাকের ঘর থেকে নদী বা খাল অবধি। পাশাপাশি সাধারণ পথচারী চলাচলের জন্য তো রাস্তা থাকছেই। তবে জনসাধারণকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে তারা যেন ওই মিলিত রাস্তায় চলাচলের সময় বিশেষভাবে সতর্ক থাকেন।

তাহলে কি যুক্তরাজ্যের এই নতুন হংসপথ এটাই প্রমাণ করলো যে শুধু হাঁস নয় প্রকৃতির সকল প্রজাতিই সহঅবস্থান করতে পারবে?