মেইন ম্যেনু

হাইকোর্ট থেকে ব্যারিস্টার রফিকুলের জামিন

নাশকতা ও গাড়ি পোড়ানোর অভিযোগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা সব মামলায় জামিন হয়েছে। তবে এই মুহূর্তে তিনি কারামুক্তি পাবেন কিনা সে বিষয়টি স্পষ্ট করেননি আইনজীবীরা।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) বিচারপতি শওকত হোসেন ও বিচারপতি কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এক মামলায় তার জামিন দেন। রফিকুল ইসলাম মিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী বিষয়টি বাংলামেইলকে জানিয়েছেন।

তিনি জানান, রাজধানীর শাহআলী থানায় দায়ের করা মামলায় ব্যারিস্টার রফিকুল জামিন পেলেন। সম্প্রতি হাইকোর্ট থেকে পর পর দুই ধাপে ১৬ মামলায় জামিন নেন সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র এ আইনজীবী। এর আগে গত ৩১ মে ও ৯ জুন এ সকল মামলায় তিনি উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেন।

ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া মোট ২৮টি নাশকতার মামলার আসামি। এক মামলায় জামিন হওয়ায় তার বিরুদ্ধে দায়ের করা সকল মামলায় জামিন হলো।

ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া বর্তমানে কারাগারে আছেন। গত ১৬ মে দুপুরে নাশকতার দশ মামলায় তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান ঢাকার সিএমএম আদালত। ওইদিন আত্মসমর্পণ করে নাশকতার ১৪ মামলায় জামিনের আবেদন জানান ব্যারিস্টার রফিকুল।

বিভিন্ন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত চার মামলায় জামিন মঞ্জুর ও বাকি দশ মামলায় নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে নাশকতার অভিযোগে রাজধানীর পল্টন, মতিঝিল, মিরপুর, পল্লবী ও যাত্রাবাড়ী থানায় মোট ২৮টি মামলা দায়ের করা হয় ব্যারিস্টার রফিকুলের বিরুদ্ধে।