মেইন ম্যেনু

হাজারটা বেড়ালের সাথে বাস করেন যিনি

প্রাণি পোষার শখ আছে অনেকেরই। বিশেষ করে কুকুর, বেড়াল ধরনের প্রাণি। তবে একসাথে এক হাজার বেড়াল পোষার শখ আছে কার? কারো শখ না থাকলেও খুঁজে পাওয়া গেছে এমনই এক সৌখিন নারী।

৪ হাজার ২০০ বর্গফিটের বাড়িতে ১ হাজার বেড়াল নিয়ে বসবাস করেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দা ৬৭ বছর বয়সী লিনিয়া লাতানজিও। ইতিমধ্যে ‘বেড়ালপ্রেমী’ খেতবও পেয়েছেন তিনি।

লিনিয়া তার বাড়িটির নাম দিয়েছেন ‘ক্যাট হাউজ অন দ্য কিংস’। এটি ক্যালিফোর্নিয়ায় বেড়ালদের সবচেয়ে বড় অভয়ারণ্য। ক্যালিফোর্নিয়ার রাস্তাঘাটে ফেলে দেয়া সব বেড়ালদের আশ্রয় হয় এখানেই। আর এগুলো পোষার জন্য তার আছে একটি স্বেচ্ছাসেবক দলও। তারা প্রতিদিন এখানকার ৮০০ বয়স্ক এবং ৩০০ বাচ্চা বেড়ালের দেখাশোনা করেন।

১৯৯২ সাল থেকে বেড়াল পোষা শুরু করেন লিলিয়া। আর এখন তিনি হয়ে উঠেছেন রীতিমতো একজন প্রাণিবিশেষজ্ঞ। এর মধ্যে পশু ‍চিকিৎসার ওপর একটি প্রাতিষ্ঠানিক ডিগ্রিও নিয়েছেন তিনি। স্বল্পমূল্যে অন্যদের পোষা প্রাণিদের চিকিৎসা সেবা দেন লিলিয়া।

বেড়ালের সাথে বাস করেন যে নারী

তার এই পোষা প্রাণিদের আশ্রয়স্থলটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত ২৪ হাজার বেড়াল এবং ৭ হাজার কুকুরকে প্রাণে বাঁচিয়েছেন লিলিয়া। ব্রিটিশ গণমাধ্যম টেলিগ্রাফকে তিনি বলেন, ‘পাগলাটে বেড়াল নারীদের তালিকায় আমি শীর্ষে। আমি ভাবতেই পারিনা ২৪ বছরে কেউ ২৮ হাজার বেড়ালের সাথে বাস করবে। এটা সম্ভবত একটা রেকর্ড।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি বেড়াল ভালোবাসি কারণ ওরা স্বাধীন, ওরা সুন্দর এবং কোমল।’ তিনি জানান, প্রথমে তার এতাগুলো বেড়াল নিয়ে বাস করার কোনো ইচ্ছা ছিল না। তবে পর্যায়ক্রমে বেড়ালের সংখ্যা ১ হাজার ছাড়িয়ে যায়।



« (পূর্বের সংবাদ)