মেইন ম্যেনু

হামলার পর ফোনকলে এক জঙ্গি বলেছিল ‘সবাইকে হত্যা করা শেষ’

গুলশানের হলি আর্টিসান রেস্টুরেন্টে বর্বরচিত হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হওয়ার পরে বন্দুকধারীদের একজন ঘটনাস্থল থেকে একটি ফোনকল করেছিলেন। তিনি কোনো এক ব্যক্তিকে ফোন কল করে বাংলায় বলেছেন, ‘সবাইকে হত্যা করা শেষ’।

বুধবার (৬ জুলাই) বিকেলে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) কার্যালয়ে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

বিদেশি সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘গুলশানের রেস্টুরেন্টে হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ আটক নেই। তবে ৪ সন্দেহভাজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক হাসনাত রেজা করিম, শিল্পপতি শাহরিয়ার হোসেন খানের পুত্র তাহমিদ হোসেন খান ও ওই রেস্টুরেন্টের দুই সেফ।’

তিনি আরো বলেন, ‘নিহত জঙ্গিদের মধ্যে ৩ জন তালিকাভুক্ত ছিলো। এদের মধ্যে একজন শফিকুল ইসলাম। তিনি উত্তরবঙ্গে দু’টি মামলার আসামি। অন্য দু’জন নিবরাস ইসলাম ও সামি মোবাশ্বের। এরা দু’জনই চলতি বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি উত্তরায় দায়ের হওয়া একটি নাশকতা মামলার আসামি।’

উল্লেখ্য, শুক্রবার হলি আর্টিসান বেকারি নামের রেস্টুরেন্টে বন্দুকধারীরা হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জিম্মিকে হত্যা করে। সন্ত্রাসীদের ছোড়া গ্রেনেডে প্রাণ যায় ডিবির এসি রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ওসি সালাউদ্দিন খানের।

পরে শনিবার সকালে কমান্ডো অভিযান চালিয়ে জিম্মি সঙ্কটের অবসানের পর দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়, সন্দেহভাজন ছয় হামলাকারী নিহত হয়েছে এবং একজন ধরা পড়েছে। অবশ্য নিহত ছয়জনের মধ্যে পাঁচজনকে পরে হামলাকারী হিসেবে শনাক্ত করা হয়।

শনিবার সকালে উদ্ধার ১৩ জনসহ ২৭ জনকে নিয়ে যাওয়া হয় গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে। পরে তাদের বক্তব্য শুনে যাচাই-বাছাই করে অনেককে ছেড়ে দেয়া হয়। আবার কেউ কেউ এখনো আটক রয়েছেন।