মেইন ম্যেনু

হারের পর যা বললেন দুঙ্গা

সেই একই স্টেজ, একই প্রতিপক্ষ। ২০১১ সালে আর্জেন্টিনার লা প্লাটায় কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে প্যারাগুয়ের মুখোমুখি হয়েছিল ব্রাজিল। কিন্তু সেবার প্যারাগুয়ের কাছে টাইব্রেকারে হেরে লাতিন আমেরিকার সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এই টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছিল সেলেসাওরা।

৪ বছর পর আবারও কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি ব্রাজিল-প্যারাগুয়ে। ব্রাজিলের সামনে ছিল প্রতিশোধের সুযোগ। কিন্তু প্রতিশোধ তো দূরে থাক, উল্টো ২০১১ সালেরই পুনরাবৃত্তি ঘটিয়েছে ব্রাজিল। রোববার ভোরে চিলির কনসেপসিওনে প্যারাগুয়ের কাছে আবারও টাইব্রেকারে হেরেই কোপার শিরোপার স্বপ্ন ভেঙেছে ব্রাজিলিয়ানদের।

২০১১ সালে ব্রাজিলের কোচ ছিলেন লুইস ফেলিপে স্কলারি। তার উত্তরসূরি হিসেবেই গত বিশ্বকাপের পর ব্রাজিলের দায়িত্ব নিয়েছিলেন কার্লোস দুঙ্গা। এবার তিনিও ব্রাজিলকে কোপার শিরোপা জেতাতে পারলেন না। কিন্তু প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচে তো এগিয়েই ছিল ব্রাজিল।

১৫ মিনিটেই রবিনহোর গোলে এগিয়ে গিয়েছিল দুঙ্গার দল। তবে ৭২ মিনিটে থিয়াগো সিলভার হ্যান্ডবলে পেনাল্টি পায় প্যারাগুয়ে। সমতায় ফেরার সুযোগ নষ্ট করেনি তারা। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে প্যারাগুয়ে কাছে হেরে বিদায়ও নিল ব্রাজিল।

কিন্তু কেন ব্রাজিলের অমন হার? ম্যাচ শেষে ব্রাজিলের কোচ দুঙ্গা জানালেন, তার দলের খেলোয়াড়রা নাকি কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচের আগে থেকে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। কেউ মাথা ব্যথা আবার কেউবা পিঠের ব্যথায় ভুগছিলেন। যদিও এগুলোকে হারের অজুহাত হিসেবে দাঁড় করাতে চান না দুঙ্গা।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে দুঙ্গা বলেন, ‘এটাকে হারের অজুহাত হিসেবে দাঁড় করাব না। কিন্তু এই সপ্তাহে আমাদের ১৫ জন খেলোয়াড় ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। খেলোয়াড়রা অনেক মাথা এবং পিঠের ব্যথায় ভুগছিলেন। কারো অসুস্থতা অন্যের চেয়ে বেশি ছিল। অনেকে বমিও করেছেন। ম্যাচের প্রথমার্ধের পর উইলিয়ানের অবস্থা ভালো ছিল না। ম্যাচের শেষে রবিনহোরও একই অবস্থা ছিল।’

কোপার গ্রুপ পর্বে কলম্বিয়ার খেলোয়াড়দের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে লাল কার্ড দেখে চার ম্যাচ নিষিদ্ধ রয়েছেন নেইমার। ফলে তাকে ছাড়াই গ্রুপ পর্বে ভেনেজুয়েলা ও কোয়ার্টারে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে খেলতে হয় ব্রাজিলকে। তবে কী দলের সেরা তারকা না থাকার কারণেই প্যারাগুয়ের কাছে হারল সেলেসাওরা? দুঙ্গা অবশ্য এমনটা মনে করেন না।

‘ঐতিহাসিকভাবে কোপা আমেরিকা বেশ জটিল একটি টুর্নামেন্ট। ব্রাজিল এখানে বেশ কয়েকবার (৮ বার) শিরোপা জিতেছে। যখন আপনি জিতবেন কেউ কিছু বলবে না। কিন্তু হারলে সবাই বলবে কিছু একটা যেন ছিল না। নেইমার আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ একজন খেলোয়াড়, যেমনটা বার্সেলোনার জন্য। কিন্তু আমাদের আরো কিছু ভালো মানের খেলোয়াড় রয়েছে’-বলেন দুঙ্গা।

কোপা জিততে না পারলেও আগামী বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করাটাই এখন প্রধান লক্ষ্য বলে জানালেন দুঙ্গা, ‘আমরা কোপা জিততে চেয়েছিলাম কিন্তু পারিনি। তবে বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করাই এখন আমাদের সর্বোচ্চ লক্ষ্য।’