মেইন ম্যেনু

হালকা শীতের পোশাকে হয়ে উঠুন ফ্যাশনেবল…

শীতটা সেভাবে এখনও জাঁকিয়ে বসেনি। তবে সকালে যখন কাজে বের হন কিংবা রাতে যখন বাড়ি ফেরেন, তখন নিশ্চয়ই একটা ঠাণ্ডা হাওয়া ছুঁয়ে যায়? চমৎকার এক মৌসুম। এমন সময়ে না ভারি শীতের পোশাক পরা যায়, না বেছে নেয়া যায় সাধারণ পোশাক। তবে এ হালকা শীতটা কিন্তু ফ্যাশনের জন্য দারুণ। চমৎকার সব স্টাইলিশ পোশাক হতে পারে আপনার এ সময়ের সঙ্গী। পুরুষের শীত পোশাকের মধ্যে প্রথমেই ভাবনায় আসে সোয়েটার ও জ্যাকেট। এছাড়া কিছু পোশাকের সঙ্গে শীতের চাদরও বেশ মানিয়ে যায়। তবে ভারি সোয়েটার, জ্যাকেট বা শাল কিছুই পরার সময় এখনও আসেনি।

বাজারে ঘুরলেই দেখবেন একদম হালকা জিন্স বা গ্যাবাডিনে তৈরি জ্যাকেট এরই মধ্যে চলে এসেছে। হালকা শীতে এগুলো দেখাবে দারুণ স্টাইলিশ। পাতলা উলের সোয়েটার কিংবা ফুল স্লিভ টি-শার্টও চলে এসেছে বাজারে। এগুলো একইসঙ্গে আপনাকে দেবে উষ্ণতা ও স্টাইল। শীতের সময় জ্যাকেট কিংবা সোয়েটারের সঙ্গে নানা স্টাইলের জিন্সের চলটাই সবচেয়ে বেশি। ভালো লাগবে ফর্মাল প্যান্টের সঙ্গেও।

বর্তমানে শীত পোশাকের বাজারে চলে এসেছে জ্যাকেট, সুয়েটার, স্কার্ফ ইত্যাদি। নানা মেটিরিয়ালে অসাধারণ সব কম্বিনেশনে মিলছে এসব পোশাক। তবে সবকিছু ছাপিয়ে হালকা শীতে প্রাধান্য পাচ্ছে ফুলহাতা টি-শার্ট আর হুডি। তরুণ-তরুণীদের কাছে হুডি হালের স্টাইল হয়ে উঠেছে। হালকা শীতের মধ্যে এ পোশাকটির চাহিদা সবচেয়ে বেশি থাকে।

আমাদের দেশে হুডি ফ্যাশনের আগমন ঘটে মূলত পশ্চিমা ফ্যাশনের হাত ধরেই। কনকনে ঠাণ্ডা বাতাস বইছে। কানের ভেতর দিয়ে পৌঁছে যেন অবশ করে দিচ্ছে মাথা। কানঢাকা টুপি পরা ছাড়া গতি নেই; কিন্তু জিনিসটা তো বড্ড সেকেলে। ফ্যাশনেবল না হলে কী আর তা পরা যায়? এর সমাধান হুডি। জ্যাকেট বা সোয়েটারের শুধু হুডটা টেনে মাথা ঢেকে নেয়া। দেখতেও দারুণ। ব্যস আর কী চাই। হুড পরা তরুণ-তরুণীর সংখ্যা তাই বাড়ছেই।

QteQl18

গরম কাপড় মানেই এখন আর মোটা কাপড় বোঝায় না। তাছাড়া তরুণরা চান, শীতের কাপড়ে যেন ফ্যাশনটাও হয় ঠিকঠাক। আর তাই তো এখন বাজারে হালকা গরম কাপড়ের কাটছাঁটে বৈচিত্র্যের অভাব নেই। মোটা স্যুট-কোট বা হাত থেকে পা অবধি শীত পোশাকের আবরণে নিজেকে মুড়িয়ে রাখা ঠিক পছন্দ নয় অনেকের। কাপড়ের ধরনের সঙ্গে রঙ আর নকশাটাও দেখে নেন ছেলেরা। শীতের পোশাকে এখন হালকা-পাতলার চল। জ্যাকেট আর ব্লেজারের মিশ্রণে তৈরি নতুন ধরনের শীত পোশাক আছে ছেলেদের পছন্দের শীর্ষে। আজকাল এ পোশাকের ভেতরে গরম কাপড় বা ‘ইনার’ পরে নেন অনেকে। ফলে জ্যাকেট বা ব্লেজার একটু পাতলা হলেও চলে।

পাতলা বা কৃত্রিম চামড়া, জিন্স, সুতি, গ্যাবাডিন, মখমল কাপড়ের ব্লেজার বা জ্যাকেট, উলের তৈরি পাতলা নানা রঙের সোয়েটার ইত্যাদি বেশ চলছে এবারের শীতে। ফ্যাশন হাউস জোবাইদি সাকি বলেন, জ্যাকেটে হাই শোল্ডার, বড় আকারের বোতাম, হাতা বা নিচের দিকটায় নানা ধরনের কাটের চল এসেছে। কোনো কোনো জ্যাকেটের সামনের দিকে বোতামের পরিবর্তে ব্যবহার করা হয়েছে চেইন। চাইলে জ্যাকেটের বুক খুলে ভেতরে রঙিন টি-শার্ট পরে বেরোতে পারেন।

হুডি জ্যাকেটও মিলবে বাজারে। উলের সোয়েটারে গোল গলার পাশাপাশি ভি গলা চলছে। সামনের দিকে বুক পর্যন্ত কেটে কোনোটিতে আবার দু-তিনটি রঙিন বোতাম এঁটে দেয়া আছে। ফুল হাতার এসব সোয়েটারের হাতার দিকে আলাদা রঙ এর উজ্জ্বলতা বাড়িয়ে তুলেছে। গ্যাবাডিন কাপড়ের ক্যাজুয়াল ব্লেজারে এক রঙ ছাড়াও মিলবে নানা ধরনের ওয়াশ। ফলে এগুলো বেশ বৈচিত্র্যময়। জ্যাকেট বা ব্লেজার, যেটাই পরুন না কেন, সঙ্গে হাইনেক বুট আর গলায় পেঁচিয়ে নিতে পারেন স্কার্ফ। ব্যস, এটুকুতেই এ শীতে আপনি হয়ে উঠতে পারেন আকর্ষণীয়।

লেখক: রুবেল দাস প্রিন্স