মেইন ম্যেনু

হাসনাতকে গ্রেফতার দেখিয়ে ফের রিমান্ডে নিতে চায় পুলিশ

৫৪ ধারায় গ্রেফতার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক হাসনাত করিমকে এবার গুলশানের হলি আর্টিসান রেস্তোরাঁয় হামলার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে রিমান্ডে নিতে চায় পুলিশ।
শনিবার ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) সূত্রে জানা গেছে, এই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাসনাতকে ১০ দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ।

একই ঘটনায় কানাডার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী তাহমিদ হাসিব খানকে আগের মতো ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে সাতদিনের রিমান্ড চাওয়া হবে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডিসি (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান বলেন, সন্দেহভাজন হিসেবে তাহমিদকে সাত দিনের রিমান্ডে চাইবে পুলিশ। এছাড়া হাসনাত করিমকে গুলশানের হামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে ১০ দিনের রিমান্ডে চাওয়া হবে।

গত ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিসান বেকারিতে হামলার প্রায় এক মাস পর গত ৪ আগস্ট হাসনাত ও তাহমিদকে সন্দেহভাজন হিসেবে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আটদিনের রিমান্ড পায় পুলিশ। তবে ২ জুলাই থেকে ৩ আগস্ট পর্যন্ত হাসনাত ও তাহমিদ কোথায় ছিলেন তা নিয়ে দুই রকম বক্তব্য রয়েছে। হাসনাত ও তাহমিদের পরিবার বলছে তারা পুলিশের কাছে ছিল। অন্যদিকে পুলিশ বলছে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল।

১ জুলাই রাতে গুলশানের হলি আর্টিসান রেস্তোরাঁয় হামলা চালিয়ে দেশি-বিদেশি বেশ কজনকে জিম্মি করে জঙ্গিরা। পরদিন সেনা কমান্ডো অভিযানে জিম্মিদশার অবসান হয়। তার আগেই ১৭ বিদেশি নাগরিকসহ ২০ জনকে হত্যা করে জঙ্গিরা। অভিযানে মৃত্যু হয় সন্দেহভাজন পাঁচজঙ্গিসহ ছয়জনের।

আইএস ওই হামলার দায় স্বীকার করে পাঁচ হামলাকারীর ছবি প্রকাশ করলেও পুলিশ এ ঘটনার জন্য দেশীয় জঙ্গি দল জেএমবিকে দায়ী করে আসছে।

সেদিন অভিযান শেষে উদ্ধার ১৩ জনসহ ৩২ জনকে নেওয়া হয় গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে। জিজ্ঞাসাবাদ ও যাচাই-বাছাই করে তাদের অনেককে ছেড়ে দেওয়া হলেও হাসনাত ও তাহমিদকে ফিরে না পাওয়ার কথা জানানো হয় পরিবারের পক্ষ থেকে।

এরপর পুলিশ জানায়, গত ৩ আগস্ট রাতে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে তাহমিদকে এবং গুলশান আড়ংয়ের সামনে থেকে হাসনাতকে গ্রেফতার করা হয়। নিষিদ্ধ সংগঠন হিযবুত তাহরীরের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে হাসনাতকে ২০১২ সালে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়েছিল বলে গণমাধ্যমের খবর।

ব্যবসায়ী শাহরিয়ার খানের ছেলে তাহমিদ কানাডার একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন। গুলশানের ঘটনার একদিন আগে দেশে ফিরে ইফতারের পর বন্ধুদের সঙ্গে তিনি ওই রোস্তোরাঁয় গিয়েছিলেন বলে পরিবারের দাবি।



(পরের সংবাদ) »