মেইন ম্যেনু

হায়েজ শেষ হলে ঋতুমতী নারীর করনীয়-বর্জনীয়

ফরয গোসল করার জন্যে প্রথমে নাপাক দূর করতে হবে। তারপর ‘বিসমিল্লাহ’ বলে সমস্ত শরীরে পানি পৌঁছাবে। বিশেষভাবে মাথার চুলের গোঁড়ায় পানি পৌঁছানো, চুলে খোঁপা বাঁধা থাকলে খোলা জরুরি নয়, তবে চুলের গোঁড়ায় অবশ্যই পানি পৌঁছানো জরুরি, যদি পরিচ্ছন্নকারী কোনো বস্তু যেমন, সাবান ইত্যাদি ব্যবহার করা হয় খুব ভালো।

ঋতুমতী নারীর ঋতু শেষে গোসল করা জরুরি, অর্থাৎ পবিত্র হওয়ার নিয়তে সমস্ত শরীরে পানি প্রবাহিত করা।

রাসুল [সা] বলেছেন-

فإذا أقبلت حيضتك فدعي الصلاة، وإذا أدبرت فاغتسلي وصلي

অর্থাৎ, যখন তোমার হায়েয শুরু হয় তখন নামাজ ত্যাগ কর, আর যখন বিদায় নেয় গোসল কর ও সালাত পড়।

ফরয গোসল করার জন্যে প্রথমে নাপাক দূর করতে হবে। তারপর ‘বিসমিল্লাহ’ বলে সমস্ত শরীরে পানি পৌঁছাবে। বিশেষভাবে মাথার চুলের গোঁড়ায় পানি পৌঁছানো, চুলে খোঁপা বাঁধা থাকলে খোলা জরুরি নয়, তবে চুলের গোঁড়ায় অবশ্যই পানি পৌঁছানো জরুরি, যদি পরিচ্ছন্নকারী কোনো বস্তু যেমন, সাবান ইত্যাদি ব্যবহার করা হয় খুব ভালো।

গোসলের পর সুগন্ধি জাতীয় তুলা অথবা কোনো সুগন্ধি বস্তু যোনীতে ব্যবহার করা মুস্তাহাব। রাসুল [সা] হজরত আসমা [রা]-কে অনুরূপ নির্দেশ প্রদান করেছেন। (মুসলিম)

মূল : ড. সালেহ ইবনে ফাওজান
ভাষান্তর : মাওলানা মনযূরুল হক