মেইন ম্যেনু

হিন্দুর মেয়েকেই বিয়ে করলেন ইমামের ছেলে

গো হত্যা নিষিদ্ধ উত্তরপ্রদেশে একদল লোক কিছুদিন আগে গুজব ছড়ায়, দাদরির এক গ্রামের বাসিন্দা জনৈক আখলাকের পরিবার গোমাংস খেয়েছে। এই অপবাদে তার বাড়িতে হামলা চালানো হয়। পিটিয়ে হত্যা করা হয় আখলাককে। জখম হয় তার ২২ বছরের ছেলে দানিশকে। কিন্তু সেই ভারতেই আবার কোথাও কোথাও ধর্মীয় বিভেদ ভুলে দেখা যায় সম্প্রীতির বার্তাও।

যেমন দিল্লির জামে মসজিদের শাহী ইমাম বুখারির ছেলে শাবান বুখারির ক্ষেত্রে। ইমামের ছেলে হয়েও তিনি এক হিন্দু নারীকে বিয়ে করলেন। এমনকি শাবান বুখারিও দিল্লি জামে মসজিদের দ্বিতীয় ইমাম।

স্থানীয় এক সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা যায়, দু’বছর ধরে গাজিয়াবাদের ওই হিন্দু নারীর সঙ্গে প্রেম করেন শাবান। অবশ্য প্রথমে বিয়ের বিপক্ষেই ছিলেন শাহী ইমাম বুখারি। কিন্তু কনে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার আশ্বাস দেয়াতেই রাজি হয়েছেন তিনি। ওই নারী কোরআনেও দীক্ষা নিয়েছেন।

অবশেষে বৈবাহিক বন্ধনে আবদ্ধ হয় তারা। তবে বিয়েতে খুব কাছের আত্মীয় ছাড়া কাউকেই নিমন্ত্রণ করা হয়নি। যদিও ১৫ নভেম্বর হবে তাদের রিসেপশন। মাহিপালপুরে একটি কমিউনিটি সেন্টার বুক করা হয়েছে সেই অনুষ্ঠানের জন্য। হয়তো সেখানেই সবাইকে দাওয়াত করা হবে।

এদিকে ‘অসহিষ্ণুতা’ ইস্যুতে প্রতিবাদ জানিয়ে জাতীয় সম্মান ফিরিয়ে দিচ্ছেন দেশের বুদ্ধিজীবীরা। সেইখানে দুই ধর্মের এ বৈবাহিক সম্পর্ক ‘অসহিষ্ণুতা’র বিরুদ্ধে বড় প্রতিবাদ বলেই মনে করছেন বিভিন্ন মহল।