মেইন ম্যেনু

হুমকি আগ্রাহ্য করে আমেরিকা-উত্তর কোরিয়া সামরিক মহড়া

কোরিয় উপসাগরে আমেরিকা এবং দক্ষিণ কোরিয়া বিশাল সামরিক মহড়া শুরু করেছে। এ মহড়া ২৮ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। উত্তর কোরিয়ার হুমকি অগ্রাহ্য করে সোমবার এ মহড়া শুরু করা হল। মহড়াকে যুদ্ধ ঘোষণা হিসেবে গণ্য করা হবে বলে পিয়ংইয়ং এর আগে বলেছিল।

বাৎসরিক উলচি ফ্রিডম অনুশীলন নামে পরিচিত এ মহড়াকে প্রধানত কম্পিউটার সিমুলেশন বলা হলেও এতে কোরিয়ার ৫০ হাজার এবং আমেরিকার তিন হাজার সেনা অংশ নিয়েছে। মহড়ায় উত্তর কোরিয়ার সর্বাত্মক হামলার পরিস্থিতি ফুটিয়ে তোলা হবে। অবশ্য এ সত্ত্বেও ওয়াশিংটন এবং সিউল তাদের ভাষায় এ মহড়াকে নেহাৎ আত্মরক্ষামূলক বলে দাবি করেছে।

এদিকে, উত্তর কোরিয়ার আন্তঃসীমান্ত ইস্যু নজরদারির দায়িত্বে নিয়োজিত কোরিয়া পুনঃএকত্রীকরণ কমিটি এর আগে এ মহড়ার বিরুদ্ধে বিবৃতি দিয়েছে। এতে, বিশাল আকারের এ জাতীয় মহড়া প্রায় যুদ্ধ ঘোষণার সমতুল্য। এ জাতীয় ঘটনা সামরিক সংঘাত সৃষ্টি করতে পারে, যা কিনা সর্বাত্মক যুদ্ধে পরিণত হতে পারে। দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে আমেরিকার যৌথ সামরিক মহড়া শুরু হলে পাল্টা সামরিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে উত্তর কোরিয়ার জাতীয় প্রতিরক্ষা কমিশন হুমকি দিয়েছিল।