মেইন ম্যেনু

হেলিকপ্টারের অনুপ্রবেশ : মিয়ানমারের ব্যাখ্যায় অসন্তুষ্ট বাংলাদেশ

মিয়ানমারের হেলিকপ্টারটি ভুল করে বাংলাদেশের আকাশে ঢুকে পড়েছিল। যে বিমান ঢুকেছিল সেটি মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নয়, সাধারণ হেলিকপ্টার। মিয়ানমারের তরফ থেকে এমন ব্যাখ্যাই দেয়া হয়েছে। মিয়ানমারের এমন ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট নয় বাংলাদেশ। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বিজিবি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

বাংলাদেশ সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ভবিষ্যতে এভাবে কোনো হেলিকপ্টার আকাশসীমা লঙ্ঘন করলে আর জওয়ানরা গুলি করে সেটি ভূপাতিত করলে সেই দায় নিতে হবে মিয়ানমারকেই।

বিজিবি সূত্র জানায়, এ ঘটনার পরপরই বিজিবির তরফ থেকে বিষয়টি দেশের স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং বিমানবাহিনীকে অবহিত করা হয়। সঙ্গে সঙ্গে ফোন করা হয় মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের। তারা বিজিবিকে জানান, এটি কোনো সামরিক হেলিকপ্টার নয়। সাধারণ হেলিকপ্টার। ভুল করে বাংলাদেশের আকাশসীমায় ঢুকে পড়েছিল।

মিয়ানমারের এমন বক্তব্যে সন্তুষ্ট হতে পারেনি ঢাকা। বিজিবির তরফ থেকে কড়া ভাষায় চিঠি লিখে পাঠানো হয়। তাতে উল্লেখ করা হয়েছে, সীমান্ত এলাকায় কোনো হেলিকপ্টার ওড়ার ক্ষেত্রে পার্শ্ববর্তী দেশকে অবহিত করার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু অনুমতি না নিয়ে মিয়ানমারের হেলিকপ্টার বাংলাদেশের আকাশসীমায় আসায় আইনের লঙ্ঘন হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার দুপুর ১২টার দিকে সাংগু রিজার্ভে নতুন স্থাপিত বুলুপাড়া পানঝিড়ি এলাকায় চারটি বিজিবি ক্যাম্পের ওপর দিয়ে মিয়ানমারের জলপাই রঙের একটি সামরিক হেলিকপ্টার নিচু দিয়ে উড়ে যায়। ৬৫ সীমান্ত পিলার এলাকা দিয়ে প্রবেশ করে এটি পশ্চিম দিকে মিয়ানমারের দিকে উড়ে যায়। এ ঘটনার পরপরই সীমান্তে বিজিবি সতর্ক অবস্থান নেয়।