মেইন ম্যেনু

১০ বছরের আগেই বিয়ের পিঁড়িতে ১ কোটি ২১ লাখ শিশু

দেড়শ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাল্যবিয়ের অভিশাপ থেকে রেহাই পাওয়ার লড়াই চালিয়ে আসছে ভারত। কিন্তু এখনো এই অভিশাপ মোচন করতে পারেনি দেশটি।

সাম্প্রতিক এক পরিসংখ্যানের বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা রয়টার্স বলছে, বর্তমানে ভারতে এক কোটি ২১ লাখ মানুষ রয়েছেন, যারা বিয়ের পিঁড়িতে বসেছিলেন ১০ বছর বয়সের অাগেই।

বাল্যবিয়ের এ সংখ্যা দেশটির বিবাহিত ৬৪ কোটি মানুষের মাত্র ২ শতাংশ। তবে এটি স্পষ্ট যে, আজও ভারতে বাল্যবিয়ে একটি সাধারণ ঘটনা।

২০১৪ সালে জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বে বাল্যবিয়ের হারে সবার ওপরে রয়েছে বাংলাদেশ। এর পরেই ভারতের অবস্থান।

দেশটির প্রভাবশালী দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়া বলছে, ১০ বছর বয়সের আগে বাল্যবিয়ের শিকার ১ কোটি ২১ লাখ শিশুর মধ্যে সাড়ে ৭৮ লাখ মেয়েশিশু ও ৪২ দশমিক ৭৭ লাখ ছেলেশিশু। মাত্র ১৩ শতাংশ নারী ও ১৬ শতাংশ পুরুষ নির্ধারিত বয়স হওয়ার আগেই বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছেন।

মেয়ের বিয়ের বয়স ১৮ ও ছেলের ২১ হওয়া সত্ত্বেও দেশটিতে ১২ কোটি ২১ লাখ মানুষ নির্ধারিত বয়সে পৌঁছানোর আগেই বিয়ে করেন; যা দেশটির বিবাহিত মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশ।

তবে দেশটির গুজরাটে সবচেয়ে বেশি বাল্যবিয়ের তথ্য উঠে এসেছে। এই রাজ্যে গত ২০ বছরে ১ লাখ ৩২ হাজার শিশু ১০ বছর বয়সে পৌঁছার আগে বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছেন।

যদিও গুজরাটে বিবাহিত মানুষের সংখ্যা মোট ৩ কোটি ৩৬ লাখ; এদের মধ্যে ৭ লাখ ৩ হাজার মানুষ দশম জন্মদিবস উদযাপনের আগেই বিয়ের বন্ধনে জড়িয়েছেন।