মেইন ম্যেনু

১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র হচ্ছে বাঁশখালীতে

কয়লাভিত্তিক ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াটের একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মিত হতে যাচ্ছে চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গণ্ডামারা পশ্চিম বড়ঘোনায়।

বেসরকারি পর্যায়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন খাতে এটিই দেশের সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ।

চীনের সেপকো ও এইচটিজির সঙ্গে যৌথভাবে ৬০০ একর জমির ওপর ২৫ হাজার কোটি টাকার এ উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশের বেসরকারি শিল্প প্রতিষ্ঠান এস আলম গ্রুপ। ৭০ শতাংশ একক মালিকানা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। আর বাকি ৩০ শতাংশ মালিকানা থাকছে দু’টি চীনা প্রতিষ্ঠানের।

ইতোমধ্যে ৬০০ একর জায়গা কেনা হয়েছে প্রকল্প বাস্তবায়নে। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে এর কার্যক্রম শুরু হবে। আগামী ৪৫ মাসের মধ্যে এর সম্পূর্ণ কার্যক্রম শেষ হবে। অর্থাৎ, ২০১৯ সালের নভেম্বরের মধ্যে এ কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব হবে বলে জানান বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আহমেদ কায়কাউস।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর বিদ্যুৎ ভবনের মুক্তি হলে এ বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে চুক্তি স্বাক্ষর করেন বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (বিপিডিপি) সচিব মাজহারুল হক এবং এসএস পাওয়ার লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাইফুল আলম।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তৌফিক-ই-এলাহী বলেন, বেসরকারী এত বড় উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। এ জাতীয় প্রকল্প বাস্তবায়নের চিন্তাও অভাবনীয় ছিল। এটি আমাদের বড় অর্জন। এভাবে বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলো নানা উদ্যোগে এগিয়ে আসলে দেশ অনেক দূর এগিয়ে যাবে। এ প্রকল্পের বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নে নতুন মাত্রা যোগ হবে।

বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আহমেদ কায়কাউসের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদ, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুস সামাদ, সেপকো’র নির্বাহী প্রেসিডেন্ট ঝ্যাং হোংশং।