মেইন ম্যেনু

১৬ বছরের কিশোরীকে বিয়ে করলেন ৬৫ বছরের শেখ

১৬ বছর বয়সী কিশোরীর পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বৃদ্ধের বয়স ৬৫ বছর। স্বাভাবিকভাবে সম্পর্কের হিসেবে তারা দাদা-নাতনি হওয়ার কথা। কিন্তু অবাক হলেও সত্যি যে ওই বৃদ্ধের সঙ্গেই কিশোরীর বিয়ে হয়েছে।

সম্প্রতি ভারতে এসে হায়দরাবাদের নবাব সাহেব এলাকার ওই কিশোরীকে বিয়ে করে নিজের দেশ ওমানে নিয়ে গেছেন ৬৫ বছরের শেখ। তবে কিশোরীর মা সায়িদা আন্নিসা বুধবার ফালাকনুমা পুলিশ স্টেশনে এসে এ ব্যাপারে অভিযোগ করেন।

তার অভিযোগ, মেয়ের অমতে তার স্বামী সিকান্দার এবং তার ননদ মিলে ওই বৃদ্ধের সঙ্গে নাবালিকা মেয়েকে বিয়ে দিয়েছে। তার মেয়ে কোনোভাবেই ওই লোককে বিয়ে করার মনমানসিকতা রাখে না।

তিনি আরও বলেন, গত রমজানের আগে একটি আবাসিক হোটেলে তারাই কাজী ডেকে মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ করেছেন তিনি। ওমান থেকে নিজের মেয়েকে ফিরিয়ে আনার দাবিও জানান সায়িদা।

বিয়ের পর চারদিন আবাসিক হোটেলে একসঙ্গে কাটানোর পর তার মেয়ের পাসপোর্ট জোগাড় করে ওমানে নিয়ে গেছেন ওই বৃদ্ধ। তাতে তার স্বামী সিকান্দার সহায়তা করেছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

তবে শেখের দাবি, তিনি পাঁচ লাখ রুপির বিনিময়ে ওই কিশোরীকে কিনে নিয়েছেন। সিকান্দারকে সেই রুপি দিয়েছেন তিনি। ওই পাঁচ লাখ রুপি ফেরত দিলেই কিশোরীকে ফেরত পাঠিয়ে দেয়ার কথা বলেছেন শেখ।

মেয়েকে ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য চাপ দিলে সিকান্দার পাল্টা হুমকি দিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন সায়িদা। তার দাবি, ওমানে উন্নত জীবনযাত্রার ভিডিও বার বার দেখিয়ে মেয়েকে ফাঁসিয়েছেন সিকান্দার।

মেয়েকে ফিরিয়ে নিয়ে আসার ব্যাপারে ফালাকনুমার এসিপির কাছে আকুতি জানান তিনি।

সূত্র : সিয়াসাত






মন্তব্য চালু নেই