মেইন ম্যেনু

১৮ মাসের এই মেয়ে জানে ২৬টি দেশের কারেন্সি, বিশ্বের ৭ আশ্চর্য!

এই মেয়ে জানে ২৬টা দেশের কারেন্সি। চেনে বিশ্বের সাতটা আশ্চর্য। গড়গড় করে বলে দিতে পারে কোন কোন দেশে সেগুলি রয়েছে। এখানেই শেষ নয়। পশু-পাখিদের নাম ইংরাজি থেকে মারাঠি ভাষায় বলে দেয়াও তার কাছে বাঁয়ে হাতের খেল। নিশ্চয়ই ভাবছেন, প্রথমটা নয় কঠিন। তবে, পরেরগুলো তো যে কেউ একটু চর্চা করলেই করে দিতে পারবে। এ আর এমন কী! দাঁড়ান, আসলে এখানে যার কথা বলা হচ্ছে তার বয়স মোটে ১৮। বছর নয়, মাস। বিস্ময় শিশুর এই কৃতিত্বের পেছনে নিঃসন্দেহে রয়েছেন তার বাবা-মা।

ভারতের নাগপুরের বাসিন্দা আশাবরী বালে মাসখানেক আগে রীতিমতো তাজ্জব হয়ে যান যখন দেখেন তার মেয়ে অদ্বিকা কথা বলতে শুরু করে। মেয়ের যখন ছ’মাস বয়স, তখন থেকে আশাবরী তাকে যা যা দেখিয়েছিলেন বা শিখিয়েছিলেন, সব গড়গড় করে বলে দিচ্ছে অদ্বিকা। যখন সে সবে হামাগুড়ি দেয়া শুরু করেছে, তখন থেকেই তাকে অক্ষর, পশু-পাখির ছবি দেখাতে শুরু করেন তার মা। আশাবরী বলছেন, ‘ওর যখন আট মাস বয়স, তখন থেকেই আমি ওকে দেশ, কারেন্সি ও সাতটা আশ্বর্য শেখাতে শুরু করি। ১০ মাস বয়সেই ও শরীরের সব অংশকে আলাদা আলাদাভাবে চিনতে শিখে যায়।’

অদ্বিকার সঙ্গে প্রায় দু ঘণ্টা সময় কাটায় এই প্রতিবেদক। সে যা যা জানে তার লম্বা তালিকা থেকে তাকে ১০০ প্রায় টি প্রশ্ন করা হয় তাকে। মাত্র দুটি প্রশ্ন ছাড়া সবকটার উত্তর মুহূর্তে দিয়ে দেয় এই ছোট্ট শিশুটি। ওর মায়ের মতে, ‘জ্ঞানের একটা খিদে রয়েছে অদ্বিকার।’ ও বই পড়তে খুব ভালোবাসে বলে জানালেন তার বাবা সাগর বালে।-টাইমস অফ ইন্ডিয়া