মেইন ম্যেনু

১ অক্টোবর নির্বাচনী প্রচারে নামছেন এরশাদ

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আরও দুই বছর বাকি থাকলেও এখনই নির্বাচনী প্রচারে নামতে যাচ্ছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। আগামী ১ অক্টোবর সিলেটের হজরত শাহজালাল (রা.)-এর মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে নির্বাচনী প্রচারণার কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানিয়েছেন দলের চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

আজ রবিবার দুপুরে রংপুর শহরের নিজ বাসা পল্লী নিবাসে সাংবাদিকদের এ কথা জানান জাপা চেয়ারম্যান। পাঁচ দিনের সফরে তিনি এখন রংপুরে অবস্থান করছেন।

২০১৩ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হয় চলমান দশম সংসদ নির্বাচন। সেই হিসাবে ২০১৮ সালের শেষ অথবা ২০১৯ সালের শুরুতে পরবর্তী সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা।

দেশের প্রধান দুই বড় দলের একটি বিএনপির বর্জনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত গত সংসদ নির্বাচন থেকে সরে যাওয়া ও প্রার্থিতা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছিলেন এরশাদও। পরে নানা নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে তার দল জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের আসন পায়। দলের সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদ হন সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা। এরশাদকে করা হয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত। এ ছাড়া জাপার আরও তিনজন স্থান পান আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের মন্ত্রিসভায়।

এবার এরশাদ আগামী নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন।

এরশাদ বলেন, দলকে সুসংগঠিত করে আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে তার দল। আগামী পহেলা অক্টোবর তিনি হজরত শাহজালাল (রা.)-এর মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে ওই নির্বাচনের আগাম প্রচারণার কাজ শুরু করবেন।

জাপা চেয়ারম্যান আশা প্রকাশ করে বলেন, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে জাতীয় পার্টি আগামী দিনে সরকার গঠন করবে।

দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, জঙ্গি ও আইনশৃঙ্খলা প্রসঙ্গ এবং জিয়ার স্বাধীনতা পদক প্রত্যাহারের বিষয়ে সরকারি সিদ্ধান্ত সম্পর্কে জানতে চাইলে এসব প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান এলমাদ।

এ সময় জাপার কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, রংপুর মহানগর কমিটির আহ্বায়ক মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, সদস্যসচীব এস এম ইয়াসির, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য শাফিউল ইসলাম শাফিসহ জেলা, মহানগর ও কেন্দ্রীয় নেতারা।



« (পূর্বের সংবাদ)
(পরের সংবাদ) »