মেইন ম্যেনু

‘১ জুন থেকে সিম স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে’

বায়োমেট্টিক পদ্ধতিতে সিম পুননিবন্ধনের সময়সীমা ৩১ মে রাত ১২টায় শেষ হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক, তার ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

তিনি বলেন, ‘বায়োমেট্টিক পদ্ধতিতে সিম পুননিবন্ধনের সময়সীমা ৩১মে রাত ১২টায় শেষ হবে। ১ জুন থেকে সিম স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে। বিষয়টি স্পর্শকাতর বলে গ্রাহকদের সুবিধার্থে সময় বাড়ানো হয়েছিল কিন্তু এরপর সময়সীমা আর বাড়ানো হবে না।’

রোববার দুপুরে সচিবালয়ে মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এই কথা জানান। তিনি বলেন, ‘ওই সময়ের মধ্যে যেসব সিম ও রিম নিবন্ধন হবে না সেসব সিম ও রিম একটানা দুমাস স্থায়ীভাবে বন্ধ রাখা হবে। তারপর বিক্রির জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। তবে পূর্বের গ্রাহকরা কিনতে চাইলে তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।’

সিম নিবন্ধনে গ্রাহকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এখনো যারা সিম নিবন্ধন করেননি তারা যেন দ্রুত সিম নিবন্ধন করেন নেন। এখন থেকে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ করলে শেষের দিকে গ্রাহকদের আর ভোগান্তি থাকবে না। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই আশা করি সিম নিবন্ধন শেষ হবে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘একজন গ্রাহকের কতটি নিবন্ধিত সিম রয়েছে তা জানার অধিকার রয়েছে। গ্রাহকদের এ বিষয়টি বিবেচনা করে আমরা প্রত্যেক গ্রাহককে তার জাতীয় পরিচয় পত্রের বিপরীতে কতটি নিবন্ধিত সিম রয়েছে জানিয়ে দেবো।’ আগামী জুনে বিটিআরসির পক্ষ থেকে এসএমএস-এর মাধ্যমে গ্রাহককে বিষয়টি জানিয়ে দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ডিজিটালাইজের ক্ষেত্রে বিশেষ করে বায়োমেট্টিক পদ্ধতি অনুসরণে বাংলাদেশ পাইওনিয়ার হতে চায়। এক্ষেত্রে যেসব বাধা মোকাবেলায় আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ ছিল তা আমরা সফলভাবে শেষ করে যাচ্ছি। বাংলাদেশ এখন আর কাউকে অনুসরণ করবে না। বাংলাদেশ নিজেই বিশ্বে অনুসরণীয় দৃষ্টান্ত হতে চায়।’

সেবার মান উন্নয়ন ও নেটওয়ার্ক বৃদ্ধির টার্গেট নিয়ে এ মন্ত্রণালয় কাজ করছে জানিয়ে তারানা হালিম বলেন, ‘নেটওয়ার্কের বিস্তৃতি ঘটিয়ে সেবার মান বৃদ্ধির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

ইন্টারনেটের দাম কমানো হবে কিনা জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে ইন্টারনেটের দাম অন্য দেশের চেয়ে কম। তাছাড়া আমরা চাইলেই খুব বেশি কমাতে পারি না। কারণ, রাজস্বের একটি বিষয় রয়েছে। তারপরও অর্থমন্ত্রীর কাছে নানা প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে যাতে ইন্টারনেটের দাম কমানো যায়।’

রাত ১২টার পর থেকে ভোর ৫টা (ফজরের আজান) পর্যন্ত গ্রাহককে কোনো ধরণের অফার সংক্রান্ত এসএমএস না দেওয়ার নির্দেশনা দেন প্রতিমন্ত্রী। মোবাইল অপারেটরদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘রাত ১২টা থেকে ফজর পর্যন্ত কোনো ম্যাসেজ পাঠাবেন না। আপনারা এ সময়ে এসএমএস দেবেন না বলে কথা দিয়েছিলেন। কিন্তু এটি ফলো হচ্ছে না। এতে গ্রাহকের ভোগান্তি হচ্ছে। বিষয়টি আপনারা ফলোআপ করবেন।’

এর আগে প্রতিমন্ত্রী সিম পুননিবন্ধন প্রক্রিয়া, কলড্রপসহ নানা বিষয় নিয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মোবাইল অপারেটরদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন।