মেইন ম্যেনু

১ মাসের মধ্যে প্রাথমিকে ২৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগ

আগামী এক মাসের মধ্যে সারাদেশে আরও ২৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার।

রোববার (১৯ জুন) জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় তিনি এ কথা জানান। সকাল সাড়ে ১০টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমীন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়।

মন্ত্রী বলেন, ‘গত দুই বছরে আমরা ২২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছি। আদালতের নির্দেশনা অনুসারে আরও প্রায় ২৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। এক মাসের মধ্যে আমরা এই নিয়োগ সম্পন্ন করব।’

মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘প্রাথমিকের প্রধান চ্যালেঞ্জ হলো মানসম্পন্ন শিক্ষা। এ লক্ষ্যে শিক্ষক ট্রেনিং বাড়ানো হয়েছে। আগে প্রাইমারি ছিল পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত। এখন অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত প্রাথমিকের আওতায় আনা হয়েছে। এ জন্য কারিকুলাম তৈরির কাজ চলছে।’

সারাদেশে যেসব স্কুল জরাজীর্ণ আছে, আগামী ২০১৮ সালের পর একটি স্কুলও এই দশায় থাকবে না বলেও জানান তিনি।

শিক্ষাখাতে বাজেট বেড়েছে উল্লেখ করে গণশিক্ষমন্ত্রী বলেন, ‘গতবার প্রাথমিক শিক্ষায় বাজেটে বরাদ্দ ছিল সাড়ে ১৩ হাজার কোটি টাকা। এবার সেখানে দেয়া হয়েছে সাড়ে ২২ হাজার কোটি টাকা। শিক্ষার দুই মন্ত্রণালয় মিলে গতবার মোট বাজেট ছিল ৩২ হাজার কোটি টাকা। এবার দেয়া হয়েছে ৫৮ হাজার কোটি টাকারও বেশি।’ বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ এখন মডেল বলেও মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের ২৪ বছরে এই দেশে একটি প্রাইমারি স্কুলও সরকারি হয়নি। সে সময়ে কোনো মাদ্রাসার জন্যও টাকা দেয়নি পাকিস্তান সরকার। ব্যক্তিগত দান-অনুদানের ভিত্তিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চলেছে।’

বঙ্গবন্ধু শুরুতেই দেশের ৩৭ হাজার প্রাথমিক স্কুলকে সরকারিকরণ করেছিলেন জানিয়ে মন্ত্রী আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর পর যারা ক্ষমতায় এসেছিলেন তারা কেউ প্রাথমিক স্কুলের সরকারিকরণ নিয়ে না ভাবলেও শেখ হাসিনার সরকার আবার ২৭ হাজার স্কুলকে সরকারিকরণ করেন।’



« (পূর্বের সংবাদ)