মেইন ম্যেনু

১ লক্ষ টাকার ল্যাপটপ মাত্র ২০ হাজার টাকায়, কিনবেন?

“ব্রান্ড নিউ ক্যামেরা, মোবাইল, ল্যাপটপ…. কিনবেন? বাজারমুল্য এক লক্ষ হলেও বিক্রয় মুল্য মাত্র ২০ হাজার”

অনলাইন ক্রয়-বিক্রয় সাইটগুলোতে এই জাতীয় কিছু ‘বিশেষ বিজ্ঞাপন’ দেখে লোভ সামলানো দায়। নীচে একটা টিএন্ডটি নম্বর দেয়া থাকে। যে-ই ফোন করে জানতে চাইবেন, কেটে দিয়ে মোবাইল থেকে আপনাকে একটা ম্যাসেজ দেয়া হবে, যার অনুবাদ অনেকটা এ রকম…

“আমি বিমানবন্দর/নদীবন্দরের একজন … কর্মকর্তা। উক্ত জিনিষটি বিদেশ থেকে আসা কার্গো থেকে অক্ষত অবস্থায় পেয়েছি (চুরি করেছি)। আপনি কিনতে চাইলে আমার এই মোবাইলে সেই পরিমাণ টাকা বিকাশ করতে হবে। বুঝতেই পারছেন, আমার পদবীর কারণে সরাসরি ক্যাশ টাকা নিতে অক্ষম। টাকা পাওয়ার পর আপনাকে ম্যাসেজ দেয়া হবে। সেই অনুযায়ী অফিসের গেইটে আসলে আমার পিয়ন আপনাকে জিনিষটি পৌঁছে দেবে।”

কী করবেন বুঝতে পারছেন না। এক পর্যায়ে স্থির করলেন, যাহ শালার.. গেলে বিশ হাজার..আসলে এক লাখ। মাঝখানে আশি হাজারের ছক্কা। করে দিলেন বিকাশ। এর পর দেখলেন, ঐ মোবাইল বন্ধ.. টিএন্ডটি ব্যস্ত। ছক্কা হয়েছে বটে, তবে ওদের পক্ষে… আপনি আউট

মূলতঃ আমাদের লোভকে পুঁজি করে এরা প্রতারণা করে যাচ্ছে। সতর্ক হউন। এদের সন্ধান পেলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অবহিত করুন। আমাদের প্রত্যাশা, অনলাইন ক্রয়-বিক্রয় সাইটগুলো এ ধরণের আকাশ-পাতাল দর-ব্যবধানের আজগুবি বিজ্ঞাপনগুলো এলাও করবে না।-Magistrates, All Airports of Bangladesh