মেইন ম্যেনু

‘২১দিন ধরে আদাবরের কয়েকটি সড়কে পানির জন্য চলছে হাহাকার’

আদাবর এলাকার কয়েকটি সড়কে প্রায় ২১ দিন ধরে পানি নেই। এলাকাবাসীর অভিযোগ, ওয়াসার পক্ষ থেকে বিকল্প পানির ব্যবস্থা করা হয়নি। এ কারণে প্রতিদিন পানি কিনে ব্যবহার করতে হচ্ছে। পানির অভাবে এলাকাবাসীর দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

ওয়াসা কর্তৃপক্ষ অবশ্য বলছে, এলাকার ওয়াসার পানির পাম্পের গভীর নলকূপ দিয়ে বালু ওঠায় এ সমস্যা হয়েছে। তারা বিকল্প উপায়ে পানি সরবরাহ করছে। সমস্যা ঘোচাতে আরও সপ্তাহ খানেক লাগবে।

এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আদাবর বায়তুল আমান হাউজিং সোসাইটির ১৩, ১৪, ১৫, ১৬, ১৭/এ, ১৭/বি ও ১৭/সি সড়কে পানির সমস্যা। ২৩ মে ১৬ নম্বর সড়কে অবস্থিত ওয়াসার বায়তুল আমান ১৬ নম্বর পানির পাম্প নষ্ট হয়ে যাওয়ায় এ সমস্যা হয়েছে।

আদাবর ১৭/এ নম্বর সড়কের বাসিন্দা কায়সার রহমান বলেন, বহুতল বাড়িতে দিনে তিন চার গাড়ি পানি কিনতে হয়। তাতে রোজ দেড়-দুই হাজার টাকা খরচ হচ্ছে। অনেক বাড়িওয়ালা পানি কেনেন। কিন্তু সবার তো এত সামর্থ্য নেই। ওয়াসা সাত দিনেও বিকল্প ব্যবস্থা করতে পারল না। ১৬ নম্বর সড়কে অবস্থিত ওয়াসার পাম্পে গিয়ে দেখা যায়, ওয়াসার লোকজন গভীর নলকূপ বসানোর কাজ শুরু করেছেন। তবে এখনো তা প্রাথমিক পর্যায়ে আছে।

পাম্প অপারেটর নুরুল আলম বলেন, পাম্প দিয়ে হঠাৎ করে বালু ও পাথর উঠতে থাকায় ছাঁকনি বন্ধ হয়ে গেছে। পানি উঠছিল না। ২৩ মে থেকে এই সমস্যা। আশপাশে ওয়াসার যে পাম্প আছে, সেখান থেকে এলাকায় পানি সরবরাহ করা হচ্ছে।

আদাবর এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ওয়াসার পানি সরবরাহের গাড়িতে করে বাড়ি বাড়ি পানি পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। ওয়াসার ছোট এক গাড়ি পানির দাম ৩০০ টাকা আর বড় গাড়ি ৬০০ টাকা। এলাকাবাসীর অভিযোগ, পানি সরবরাহ করতেও ওয়াসার লোকজনকে অতিরিক্ত টাকা বকশিশ দিতে হচ্ছে।

১৬ নম্বর সড়কের এক বাড়ির তত্ত্বাবধায়ক বলেন, ওয়াসার আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে বাড়ি বাড়ি পানি দেওয়া হচ্ছে। এক গাড়ি পানির ব্যবস্থা করতে সেখানে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।

পানির সমস্যা দেখা দেওয়া আদাবরের এই অংশে অনেক নিম্ন আয়ের লোকজন বাস করে। যাদের অনেকেরই পানি কেনার সামর্থ্য নেই। দেখা যায়, লোকজন মনসুরাবাদ এলাকায় ওয়াসার আরেকটি পাম্প থেকে সারি দিয়ে পানি সংগ্রহ করছে।