মেইন ম্যেনু

২২ বছরের দু:খ ঘোচাল কোহলির ভারত

শ্রীলঙ্কার মাটিতে ১৯৯৩ সালে শেষবারের মতো কোনো টেস্ট সিরিজ জিতেছিল ভারত। ওই সময় ভারতের নেতৃত্বে ছিলেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন। এরপর থেকে শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলি, অনিল কুম্বলে, মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো কত গ্রেট অধিনায়করা নেতৃত্ব দিয়েছেন টিম ইন্ডিয়াকে। তাদের নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কার মাটিতে চারটি টেস্ট সিরিজ খেললেও একটিতেও সিরিজ জেতা হয়নি।

অবশেষে সেই তৃষিত প্রহর কাটিয়ে বিরাট কোহলির হাত ধরেই ২২ বছরের অপেক্ষার পালা শেষ করেছে উপমহাদেশের এই ক্রিকেট পরাশক্তি দলটি।

সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় টেস্টে ভারতের দেওয়া ৩৮৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বেশ বিপদে পড়ে শ্রীলঙ্কা। চতুর্থ দিনের খেলা শেষে লঙ্কানদের সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ৬৭ রান। জয়ের জন্য আজ পঞ্চম দিনে ৩১৯ রান দরকার ছিল তাদের। আর ভারতের দরকার ছিল ৭ উইকেট। কিন্তু স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা না পারলেও মূল্যবান ৭ উইকেট তুলে নিয়ে ১১৭ রানে সিরিজ জয়ের অমৃত স্বাদ পায় বিরাট কোহলির দল।

কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব মাঠে অনুষ্ঠিত এই টেস্টে দুই দলের কারোরই ইনিংসের শুরুটা ভালো হয়নি। তবে পঞ্চম দিনে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছিলেন চতুর্থ দিনে ২২ রান নিয়ে অপরাজিত থাকা অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। পঞ্চম দিনে ব্যাক্তিগত এই ইনিংসকে টানতে টানতে ১১০ রানে নিয়ে যান তিনি। কিন্তু দলীয় এই অধিনায়কের পতনের পর শ্রীলঙ্কার একমাত্র আশার প্রদীপটাও নিভে যায়। লঙ্কানদের হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ৭০ রান করেন কুশল পেরেরা। মূলত তার আউটের পর থেকেই কিছুটা টালমাটাল হয়ে পড়ে স্বাগতিকরা।

শেষ পর্যন্ত সবকটি উইকেট হারিয়ে শীলঙ্কা থামে ২৬৮ রানে। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট পান রবিচন্দ্রন অশ্বিন। তিনটি উইকেট নেন ইশান্ত শর্মা। দুটি উইকেট লাভ করেন উমেশ যাদব এবং একটি উইকেট নেন অমিত মিশ্র।