মেইন ম্যেনু

২৩৯ রানের টার্গেট দিল বাংলাদেশ

প্রথম ওয়ানডেতে একপর্যায়ে জয়ের সুবাস পেয়েও শেষটায় তালগোল পাকিয়ে হেরেছে বাংলাদেশ। সিরিজ বাঁচাতে আজ দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠান ইংল্যান্ড অধিনায়ক জস বাটলার। আজ নিজেদের ব্যাটিং ব্যর্থতার দিনে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৩৮ রান করে বাংলাদেশ। জিততে হলে এই রান তাড়া করতে হবে ইংলিশদের।

ঘরের মাঠ মিরপুরে ব্যাট করতে নেমে আজ চেনা রূপে দেখা যায়নি বাংলাদেশকে। নিজেদের ব্যাটিং ব্যর্থতার দিনে তামিম ইকবাল (১৪), ইমরুল কায়েস (১১), সাব্বির রহমান (৩), মুশফিকুর রহিম (২১), সাকিব আল হাসান (৩), মাহমুদউল্লাহ (৭৫), মোসাদ্দেক হোসেন (২৯) ও শেষ দিকে ঝলক দেখিয়ে মাশরাফি ৪৪ রানে আউট হয়েছেন। নাসির হোসেন ২৭ রানে অপরাজিত ছিলেন।

ইংলিশদের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ইমরুল কায়েস আজ দ্বিতীয় ম্যাচেও শুরুটা ভালোই করেছিলেন। আগের ম্যাচে ক্রিস ওকসকে ছক্কা হাঁকিয়ে রানের খাতা খুলেছিলেন, আজ রানের খাতা খোলেন ওই ওকসকেই চার মেরে। পঞ্চম ওভারে ওকসকে মারেন আরেকটি চার। কিন্তু ওকসের পরের ওভারে ডেভিড উইলিকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান ইমরুল (১১)।

শুরু থেকেই রানের জন্য লড়াই করা তামিম ইকবালও ফিরে যান দ্রুতই। ওকসের পঞ্চম ওভারে মিডউইকেটে আদিল রশিদের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তামিম। বাঁহাতি ওপেনার আফগানিস্তান সিরিজের শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরি করলেও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম দুই ম্যাচে করলেন ১৭ ও ১৪ রান।

তিনে নামা সাব্বির রহমানও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। আগের ম্যাচে অভিষেকেই পাঁচ উইকেট নেওয়া জেইক বলের দ্বিতীয় বলেই বোল্ড হয়ে ফিরে যান সাব্বির (৩)। তখন ৩৯ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ।

শুরুতেই বালুর বাঁধের মতো ভেঙ্গে পড়া বাংলাদেশকে মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে মিলে স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম। দুজনে ক্রিজে কিছু সময় থিতু হয়ে গড়েছিলেন ৫০ রানের দারুণ এক জুটিও। কিন্তু ৫০ রানের পার্টনারশীপ গড়ার ঠিক পরের বলেই জেইক বলের শিকার হন মুশফিক। ব্যক্তিগত ২১ রান করে মঈন আলীর হাতে তালুবন্দি হয়ে সাজঘরে ফেরেন বাংলাদেশি উইকেটরক্ষক এ ব্যাটসম্যান।

বাংলাদেশের ব্যাটিং ব্যর্থতার দিন হাল ধরতে পারেননি দলের অন্যতম নির্ভরযোগ্য তারকা সাকিব আল হাসানও। গত ম্যাচে দলের হয়ে ৭৯ রানে ঝোড়ো ইনিংস খেললেও আজ টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানদের মতো ব্যর্থতার মিছিলে যোগ দিয়েছেন তিনি। ক্রিজে থিতু হয়ে থাকা মাহামুদউল্লাহকে একটু সাপোর্ট দিতে পারলে হয়তো বিপর্যয় কাটানো সহজ হতো টাইগারদের। কিন্তু ১৪ বল মোকাবেলা করে মাত্র ৩ রানে স্টোকসের বলে উইকেটরক্ষক বাটলারের হাতে ধরা পড়েন বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার।

মুশফিকের পর মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের সঙ্গে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৮ রানের জুটি গড়েন মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু শেষপর্যন্ত তিনিও ফিরলেন ৭৫ রান করে। ৮৮ বলে ৬ চারের সাহায্যে এ ইনিংসের পর আদিল রশিদের বলে এলবিডব্লিউর শিকার হন মাহমুদউল্লাহ।

মাহমুদউল্লাহর পর আদিল রশিদের দ্বিতীয় শিকার হয়েছেন মোসাদ্দেক। ব্যক্তিগত ২৯ রান করে মঈন আলীর হাতে ধরা পড়ে প্যাভলিয়নে ফেরেন তিনি।

বাংলাদেশ দলে একটি পরিবর্তন এসেছে। একাদশে এসেছেন নাসির হোসেন। বাদ পড়েছেন মোশাররফ হোসেন রুবেল। ইংল্যান্ড দল অপরিবর্তিত আছে।

বাংলাদেশ দল:
মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, নাসির হোসেন, শফিউল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ।

ইংল্যান্ড দল:
জস বাটলার (অধিনায়ক), জেসন রয়, জেমস ভিন্স, বেন ডাকেট, জনি বেয়ারস্টো, বেন স্টোকস, মঈন আলী, ক্রিস ওকস, আদিল রশিদ, ডেভিড উইলি ও জেইক বল।