মেইন ম্যেনু

২৫১ টাকার ফোন আগে ডেলিভারি পরে দাম!

এই প্রথম বিশ্বের সবথেকে কমদামে ২১৫ রুপিতে স্মার্টফোন দেয়ার দাবি করার পরে থেকেই রিংগিং বেলস সংস্থার বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ উঠে আসছে। এমনকি এই বিতর্ক সংসদ পর্যন্ত গড়িয়েছে। ওই সংস্থা গ্রাহকদের কাছ থেকে ফোনের আগাম দাম নিয়ে ফোন ডেলিভারি দেবে কি না, তা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেছেন অনেকেই।

এই অবস্থায় ফোন বিক্রির পদ্ধতিতে স্বচ্ছতা আনতেই একমাত্র ‘ক্যাশ অন ডেলিভারি’-র মাধ্যমে ফোন বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওই সংস্থা। প্রথম পর্যায়ে সংস্থাটি ২৫ লক্ষ ফোন সরবরাহ করবে। প্রতিটি ফোনই গ্রাহকদের হাতে পৌঁছনোর পরেই ‘ক্যাশ অন ডেলিভারি’ পদ্ধতিতে ফোনের দাম নেয়া হবে বলে দাবি করেছেন সংস্থার প্রেসিডেন্ট অশোক চাড্ডা।

এর আগে সংস্থার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল যে, কারো থেকে আগাম দাম নেয়া হলেও সেই টাকা গচ্ছিত রাখা থাকবে সংস্থার কাছে। কিন্তু সংস্থার বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়াতেই শুধুমাত্র ‘ক্যাশ অন ডেলিভারি’-র মাধ্যমে ফোন বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়া হল। এর পরে আর রিংগিং বেলস-এর অভিসন্ধি নিয়ে কারো কোনো সংশয় থাকার কথা নয় বলেই দাবি করেছেন সংস্থার প্রেসিডেন্ট অশোক চাড্ডা।

২৫১ টাকার ফোন নিয়ে বিতর্কের কারণে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারও বিড়ম্বনায় পড়েছে। বাধ্য হয়ে কেন্দ্রীয় শিল্পনীতি নির্ধারণ এবং প্রসার মন্ত্রনালয়ের সচিব ট্যুইট করে জানিয়েছেন ‘২৫১ টাকার ফোনের সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকার তো বটেই, ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ টিমও কোনোভাবেই যুক্ত নয়।’

উল্লেখ্য, বিশ্বে এই প্রথম মাত্র চার ডলার বা ২৫১ রুপিতে স্মার্টফোন পাওয়া যাবে! এমন সংবাদে বিশ্বজুড়ে যতটা হইচই ফেলেছে, তার থেকে অনেক বেশি সন্দেহ তৈরি করেছে মানুষের মনে। সত্যি সত্যি ২৫১ রুপিতে ফোন পাওয়া যাবে কি না, তা নিয়ে সংশয় ভারতীয় সাধারণ নাগরিক থেকে শুরু করে সংসদ সদস্যদের মনেও। গতকাল শুক্রবার ভারতের রাজ্যসভায় ২৫১ রুপির স্মার্টফোনকে ‘প্রতারণা’ হিসেবে উল্লেখ করে ভারতের বিজেপির নেতাদের এই প্রতারণার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ তোলেন এবং সরকারের কাছে এর উত্তর জানতে চান, কংগ্রেস সাংসদ প্রমোদ তিওয়ারি।