মেইন ম্যেনু

২ শিশুকন্যাকে বিষপান করিয়ে মায়েরও আত্মহত্যা

স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে দুই শিশুকন্যাকে বিষপান করিয়ে পরে নিজেও আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন রোজী আক্তার (২৬) নামের এক গৃহবধূ।

বরগুনা সদর উপজেলার লেমুয়া গ্রামে শনিবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। পরে তাদের বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে রাত ৯টার দিকে মারা যায় তায়িবা (৩) ও মৌমি (৫)।

গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় রোজীকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে রাত পৌনে ৩টায় তার মৃত্যু হয় বলে নিশ্চিত করেন বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজ হোসেন।

নিহত দুই শিশুর বাবার নাম রোমান পঞ্চায়েত। তিনি লেমযা পঞ্চায়েতবাড়ির সুনু পঞ্চায়েতের ছেলে। ঘটনার সময় বাড়িতে ছিলেন না রোমান।

ওই বাড়ির গৃহকর্মী হারুন (৩০) জানান, কয়েক দিন আগে রোজী বিড়াল মারার জন্য বাজার থেকে বাসুডিন আনতে বলেন। শুক্রবার সকালে বাজার থেকে বাসুডিন এনে দেন। শনিবার সন্ধ্যায় দোকান থেকে চানাচুর কিনে আনতে পাঠান। হারুন ফিরে এসে ঘরের দরজা বন্ধ দেখেন। শিশুদের কান্না শুনে জানালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে দেখতে পান দুই শিশুকে বিষপান করিয়ে রোজী নিজেও বিষপান করেছেন।

স্বজনদের খবর দেওয়া হলে তাদের বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। শনিবার রাত ৯টার দিকে বিষক্রিয়ায় দুই শিশুর মৃত্যু হয়।

এ সময় উপস্থিত স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে হাসপাতাল এলাকা। খবর পেয়ে পরিদর্শনে আসেন জেলা পুলিশ সুপার। এ ঘটনার যথাযথ তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

ধারণা করা হচ্ছে, স্বামীর সঙ্গে মনোমালিন্যের কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে। এদিকে রোজীর স্বামী রোমান হাসপাতালে এলেও স্বজনরা তার সঙ্গে কাউকে কথা বলতে দিচ্ছেন না।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজ হোসেন বলেন, তিনজনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত মামলা বা কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।



(পরের সংবাদ) »