মেইন ম্যেনু

৩০ এপ্রিলের মধ্যে নিবন্ধন না হলে সিম বন্ধ

৩০ এপ্রিলের মধ্যে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন না হলে পর্যায়ক্রমে সিম বন্ধ করে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রামে এরিকসন বাংলাদেশের কার্যালয় ও ‘ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) পোর্টাল’ উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব তথ্য দেন।

তারানা হালিম বলেন, ‘প্রাথমিক পরিকল্পনায় আমরা ৩০ এপ্রিলের মধ্যে নিবন্ধন কাজ শেষ করবো। তারপর যেসব সিমের রেজিস্ট্রি করা হয়নি ক্রমান্বয়ে সেখানে একটি সংকেত পাঠাবো। এছাড়া কয়েক ঘণ্টার জন্য সিম বন্ধ রাখা হবে। এভাবে ক্রমান্বয়ে এক পর্যায়ে সেটি বন্ধ হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, ‘এভাবে গ্রাহককে ইঙ্গিত দিলে বা কয়েক ঘণ্টার জন্য সিম বন্ধ রাখলে গ্রাহক গিয়েই এই সিমটি নিবন্ধন করে নেবেন।’

রাজপথ থেকে কলকারখানা সবকিছু ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় থাকবে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া। সেজন্য দেশের সমস্ত ফ্যাক্টরি, বিজনেস, কমিউনিটি এবং প্রত্যেকটি স্থান ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় আনা হবে।’

টেলিটককে প্রতিযোগিতামূলক বাজারের জন্য উপযুক্ত করে গড়ে তোলা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বর্তমানে টেলিটকের গ্রাহক ও সিম বিক্রি বৃদ্ধি পাওয়ায় সারাদেশে যাতে টেলিটকের নিরবচ্ছিন্ন নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় সে ব্যবস্থা করা হচ্ছে।’

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডেনের রাষ্ট্রদূত ইওহান ফ্রিজেল, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ এবং এরিকসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।