মেইন ম্যেনু

৩০ টাকায় মিললো ১২৫০ টাকা

নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে পণ্যের দাম ৩০ টাকা বেশি রাখায় অভিযুক্ত রেস্টুরেন্টকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। আর এ অভিযোগ দিয়ে পুরস্কার হিসেবে ভোক্তা পেয়েছেন ১২৫০ টাকা।

বৃহস্পতিবার জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে পণ্যের দাম বেশি নেয়ার চায়না কিচেন থাই এবং চাইনিজ রেস্টুরেন্টকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করে।

জানা গেছে, রাজধানীর বড় মগবাজারের বাসিন্দা রাফায়েত রোমান গত ২৫ ফেব্রুয়ারি হাতিরপুল বাজারে অবস্থিত চায়না কিচেন থাই এবং চাইনিজ রেস্টুরেন্টে বন্ধুদের নিয়ে খেতে যায়। এ সময় রেস্টুরেন্টটি ২৫০ এমএল কোমল পানীয় পেপসির মূল্য ১৫ টাকার পরিবর্তে ৩০ টাকা এবং দেড় লিটার মাম পানি ২৫ টাকার পরিবর্তে ৪০ টাকা রাখে। যা নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে ৩০ টাকা বেশি। পরে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরে অভিযোগ করেন তিনি।

ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার ভোক্তা অধিদফতরের সহকারী পরিচালক ফাহমিনা আক্তার শুনানি করেন। শুনানিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওযায় অভিযুক্ত রেস্টুরেন্টকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে পরবর্তীতে অতিরিক্ত মূল্য আদায় না করার মুচলেকা আদায় করা হয়। একই সঙ্গে জরিমানার ২৫ শতাংশ অর্থাৎ ১২৫০ টাকা পুরস্কার হিসেবে অভিযোগকারীকে দেয়া হয়।

এ বিষয়ে অভিযোগকারী রাফায়েত রোমান বলেন, আমরা সবাই যদি সচেতন হই তাহলে আলো আসবেই। আর জরিমানার ২৫ শতাংশ পুরস্কার পাওয়া যায় জানলে সবাই উৎসাহ পাবে।

ভোক্তাদের উদ্দেশে অধিদফতরের কর্মকর্তারা বলেন, পণ্য ও সেবা ক্রয়ের ক্ষেত্রে কোনো প্রকার প্রতারিত হলে অধিদফরে অভিযোগ করলে প্রমাণ সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেব। একই সঙ্গে জরিমানার ২৫ শতাংশ টাকা পুরস্কার হিসেবে অভিযোগকারীকে দেয়া হবে।