মেইন ম্যেনু

৩২-এ পা দিল দেশের প্রাচীনতম শ্রমিক সংগঠন “জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন”

টিপু সুলতান (রবিন) সাভার প্রতিনিধিঃ দেশের সবচাইতে বড় ও প্রাচীনতম শ্রমিক সংগঠন “জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের” ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন হয়েছে। এ উপলক্ষে সংগঠনটির নেতাকর্মীসহ কয়েকশত পোশাক শ্রমিক বাংলাশের পতাকা হাতে নিয়ে ধ্বসে পড়া রানা প্লাজার সামনে নির্মিত স্মৃতি স্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পন করেছেন।

শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই কর্মসূচি পালন করা হয়। এসময় সংগঠনটির সভাপতি আমিরুল হকের সভাপতিত্বে সংগঠনটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে সংগগঠনটির সভাপতি আমিরুল হক বলেন, গার্মেন্টস শ্রমিকদের অধিকার এবং সুযোগ সুবিদা আদায়ে সব চেয়ে বেশী অবদান রেখেছে রানা প্লাজার শহীদ ১১৩৮ জন শ্রমিকের জীবন।

তাই তারা বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের গার্মেন্টস শিল্প এবং শ্রমিকদের নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আরো দৃঢ়তার ও ঐক্যবন্ধভাবে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এছাড়া তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি গুলশানের ঘটনায় পোশাক শিল্পে তেমন প্রভাব পড়বে না। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই এমন ঘটনা ঘটছে। তাই এটা শুধু বাংলাদেশের সমস্যা নয় এটা আন্তজার্তিক সমস্যা। এ সমস্যা সমাধানে সকলকেই এগিয়ে আসতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এসময় আমিরুল ইসলাম ছাড়া অন্যান্য বক্তারা আর ও বলেন, রানা প্লাজা দূর্ঘটনায় যারা মারা গিয়েছেন তাদের মৃত্যুর জন্য দায়ী, রানা প্লাজার ভবন মালিক, গার্মেন্টস মালিক ও বায়ারসহ সরকার।

এছাড়া তারা আরও বলেন, যে সকল শ্রমিকরা রানা প্লাজায় নিহত হয়েছেন তাদের ক্ষতি পূরন দেশের প্রচলিত আইনে দেওয়া চলবে না। কারণ হিসেবে তারা উল্লেখ করেন, ১১৩৮ জন শ্রমিক সরকার, রানা প্লাজা মালিক, গার্মেন্টস মালিক,বায়ারদের অবহেলার কারনে নিহত হয়েছে।তাই নিহত শ্রমিকের পরিবারকে তার উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।