মেইন ম্যেনু

তিয়েনআনমেনের কুচকাওয়াজে প্রেসিডেন্ট জিনপিং

৩ লাখ সেনা কমাবে চীন

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জয়ের সত্তরতম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার এক বিশাল সামরিক কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে চীন। এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশেটিতে ৩ লাখ সেনা কমানোর ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

তিয়েনআনমেনে আয়োজিত এই কুচকাওয়াজে চীনের সেনাবাহিনীর বারো হাজার সৈন্য এবং রাশিয়াসহ অন্য দেশ থেকে আগত আরো এক হাজার সেনা অংশ নিচ্ছে। দেশটির ইতিহাসে এমন আয়োজন অভূতপূর্ব বলে মনে করা হচ্ছে। এই অনুষ্ঠানে ট্যাংক, মিসাইলসহ চীনের সামরিক বাহিনীর বেশ কিছু অস্ত্র-শস্ত্রের প্রদর্শনীও রয়েছে। বলা হচ্ছে এসব অস্ত্রের ৮০ভাগই এই প্রথম জনসম্মুখে তুলে ধরা হচ্ছে।

উদ্বোধনী ভাষণে প্রেসিডেন্ট শি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালে জাপানিদের পরাজিত করায় চীনা জনগণের সাহসের প্রসংশা করেন। তিনি যুদ্ধে চীনা জাতির ওপর জাপানিদের বর্বোরোতম হত্যাকাণ্ডের প্রসঙ্গটিও তুলে ধরেন।

এ সময় তিনি চীনের পিপলস রিপাবলিকের বিশাল সেনা সংখ্যা থেকে ৩ লাখ কমিয়ে আনারও ঘোষণা দেন বলে বিবিসি ও রয়টার্স জানিয়েছে। তবে তিনি কবে নাগাদ এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করবেন তার কোনো নির্দিষ্ট সময়সীমা উল্লেখ করেননি। বিপুল সংখ্যক সেনাদলের কারণে প্রায়ই সমালোচিত হয়ে থাকে দেশটি। প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সাম্প্রতিক উত্তেজনা বৃদ্ধিতেও এটি ইন্ধন জুগিয়ে থাকে।

এই অনুষ্ঠানে চীনা প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আরো অংশ নিচ্ছেন ৩০টি দেশের সরকার প্রধানরা। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হাই, সুদানের ওমার আল বাশির, দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব যুমা এবং জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্র, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের বিভিন্ন নেতারাও এতে যোগ দিয়েছেন। তবে এ অনুষ্ঠানে যোগদানে বিরত রয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শানজো আবে।