মেইন ম্যেনু

৪ শিক্ষার্থীর মাথা ন্যাড়া করে বিপাকে মক্তব শিক্ষক

যে মুহূর্তে শিশু নির্যাতন নিয়ে তোলপাড় চলছে সারাদেশে। ঠিক সে সময়ই ঘটলো আরও একটি শিশু নির্যাতনের খবর।

ফেনী সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের ‘মঠবাড়িয়া তুলাতুলি বায়তুল একরাম জামে মসজিদ মক্তবের শিক্ষক ছাত্রদের মাথার চুল বড় থাকায় শনিবার সকালে নির্দয় স্টাইলে মাথা ন্যাডা করে দিয়েছেন। আর এ কাজটি করেছেন ওই মক্তবের শিক্ষক ও মুয়াজ্জিন মোলভি মো. ফয়জুল্লাহ। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হলে মক্তব থেকে তাকে অপসারণ করেন কর্তৃপক্ষ।

যেসব শিশুদের মাথা ন্যাডা করেছে তারা হলো- তুলাতুলি গ্রামের মীর আহম্মদের ছেলে রবিন (৭), মিয়াধনের ছেলে আতিকুর রহমান (৬), পেয়ার আহম্মদের ছেলে শামীম (৬) ও ঈমন (৬)।

শামীম ও ঈমনের দাদা সুরুজ মিয়া জানান, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের এ ধরনের শাস্তি গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। ওই মোল্লা এমনভাবে শাস্তি দিয়েছেন মনে হচ্ছে যেন শিশুরা চোর-ডাকাত কিংবা বড় কোনো অপরাধে জড়িত। এ ধরনের মোল্লাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক।

ধর্মপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শহীদুল্লাহ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, মাথার চুল বড় থাকলে এ ধরনের লজ্জাজনক শাস্তি হতে পারে না। ঘটনাটি শোনার সঙ্গে সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে মক্তব শিক্ষককে অপসারণ করা হয়েছে।