মেইন ম্যেনু

৫০ হাজারের সুদ ১৮০০০০ টাকা!

এ যেন কাবুলিওয়ালাদের যুগ। আসল টাকা বাদ থাক সুদটা চাই আগে। গরিব নাজেরা ও তার স্বামী ৫০ হাজার টাকা ধার নেয়। কিন্তু মাত্র দশ মাসে তাদের কাছ থেকে শুধু সুদ বাবদ আদায় করা হয়েছে এক লাখ ৮০ হাজার টাকা।

এদিকে সুদের টাকা দিতেই সর্বশান্ত নাজেরার পরিবার। আসল টাকা যেমন ছিল তেমনি আছে। বৃহস্পতিবার সকালে দাদন ব্যবসায়ীরা সুদসহ আসল টাকা নেয়ার জন্য তাদের বাড়িতে উপস্থিত হয়। ওই সময় টাকা দিতে তারা অপারগতা জানালে তাদের মারপিট করা হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজশাহী মহানগরীর সুজানগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় ভুক্তভোগীরা নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগকারী নাজিরা জানান, নগরীর সপুরা এলাকার সামসুন্নার ও রাইহান হাসানের কাছ থেকে এক বছর আগে সুদে ৫০ হাজার টাকা নিয়েছিল তার নাজিরার স্বামী মোর্শেদ। সেই সময় কথা ছিল ওই টাকার বিনিময়ে প্রতিমাসে ১৮ হাজার টাকা লাভ দেয়া হবে।

অভাবি সংসারের কারণে তারা দিনে দিনে অসহায় হয়ে পড়েন। আসল টাকা তো দূরের কথা সুদের অর্থ প্রতিমাসে শোধ করতে করতে ১০ মাসে এক লাখ ৮০ হাজার টাকা শোধ করেন। এত টাকা দেয়ার কারণে তার পরিবার সর্বশান্ত হয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে এলাকার বিচারও বসেছিল। সে সময় দুই মাসের মধ্যে আসল টাকা ফেরত দেয়ার কথা বলা হয়। সম্প্রতি সুদের টাকা বাদ দিয়ে আসল টাকাটা ধীরে ধীরে শোধ করার অনুরোধ জানালেও দাদন ব্যবসায়ীরা সে শর্ত মানেন না। তারা সুদসহ আসল টাকা দাবি করতে থাকেন। টাকা দিতে অপারগতা জানালে নাজেরার পরিবারকে মারপিট ও করেন তারা।

বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন জানান, এ ঘটনায় অভিযোগ হয়েছে। এ বিষয়ে উভয়পক্ষকে ডেকে ব্যবস্থা নেয়া হবে।