মেইন ম্যেনু

৫১ তম জন্মদিনে আমিরের যত অজানা

বলিউডের মি.পারফেকশনিস্ট আমির খান ৫১ তম বসন্তে পা দিলেন। আজ ১৪ মার্চ আমিরের ৫১তম জন্মদিন। ১৯৬৫ সালে তিনি ভারতের মুম্বাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তবে ধুমধাম করে নয়, বরং মা জিনাত হোসেনের সঙ্গে আজ অনাড়ম্বর জন্মদিন কাটানোর পরিকল্পনা করেছেন তিনি।

সেই ছোট্টবেলা থেকেই নাকি ঘুড়ি ওড়ানোর শখ আমিরের। কিন্তু ব্যস্ত শিডিউলে ঘুড়ি ওড়ানোর সময় পান না তিনি। তাই একবার নাকি জন্মদিনে তার জন্য ঘুড়ি ওড়ানোর ব্যবস্থা করে দিলেন আমিরের ভাই। জন্মদিনের সারপ্রাইজ উপহার পেয়ে খুশি আমির। সেবার সারাদিন কাজ ফেলে ঘুড়ি উড়িয়ে জন্মদিনটি কাটিয়েছিলেন তিনি।

জন্মদিনে আমির খানের এমনই কিছু কথা ফাঁস করলেন ভাই ফয়জল খান। ছোট বেলায় বেলুন খুব পছন্দ ছিল বলিউডের মিস্টার পারফেকসনিস্টের। তাই পুরো বাড়ি, এমনকি সব ফার্ণিচারও বেলুন দিয়ে সাজানো হত। আমিরের সেই ছোটবেলাটা আর না থাকলেও সেই স্মৃতিকে তাজা করার জন্য প্রতি বছরই কিছু স্পেশাল আয়োজন করেন ফয়জল। সঙ্গে থাকে আমিরের প্রিয় শিক কাবাব। ছোট বেলায় কাবাব ছাড়া পূর্ণ হত না তার জন্মদিন। প্রতি বছর জন্মদিনে আমিরের ‘ফেভারিট’ শিক কাবাব বানিয়ে দেন তাদের মা। সঙ্গে থাকে ফয়জলের বানানো ‘সারপ্রাইজ ডিশ’। খাওয়া দাওয়া, পার্টি ছাড়াও প্রতি বছর পিকে-র জন্মদিনে থাকে একটা ধূমপান ছাড়ার প্রতিজ্ঞা, যদিও এই প্রতিজ্ঞা পালন আর সম্ভব হয় না।

আমির খান মানে ‘দিল চাহতা হ্যায়’, আমির খান মানে ‘রং দে বসন্তি’, আমির খান মানে ‘তারে জমিন পর’, আমির মানে ‘লগন’। আমির খান মানে পারফেকশন। কিন্তু জানেন কি এই মিস্টার পারফেকশনিস্টের এমন কিছু ছবি আছে ‘পারফেকশন’ যার ধারের কাছেও নেই। বরং সেগুলি বলিউডের অন্যতম বিপর্যয়।
আজ আমির খানের জন্মদিনে জেনে নিন তার এমনি কিছু সুপার ফ্লপ ছবির কথা।

জওয়ানি জিন্দাবাদ: নব্বই দশকে মুক্তি পেয়েছিল আমির খান ও ফারহা অভিনীত ছবি ‘জওয়ানি জিন্দাবাদ’। পণ প্রথার মতো এক নজর কাড়া বিষয় নিয়ে এই ছবি পর্দায় এলেও দর্শকদের তেমন নজরে আসেনি।
দিওয়ানা মুঝসা নেহি: এক ফটোগ্রাফার ও মডেলের প্রেম কাহিনীর ‘দিওয়ানা মুঝসা নেহি’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন আমির খান। ফটোগ্রাফারের ভূমিকায় ছিলেন আমির খান এবং মডেলের ভূমিকায় ছিলেন মাধু্রি দীক্ষিত। এই ছবি নিয়ে অনেক প্রত্যাশা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে।

আওয়াল নম্বর: আমির খান ও দেব আনন্দ অভিনীত এই ছবির পটভূমি ছিল ক্রিকেট। তারপর সন্ত্রাসকে জয় করে ধোনির মতো ম্যাচ উইনিং স্ট্রোক দিয়ে ছবির শেষ। মশলা থাকলেও গল্প বা বাপ্পি লাহিড়ির সঙ্গীত, কোনওটাই ছবিকে হিটের মুখ দেখাতে পারেনি।

দওলত কি জঙ্গ: বলিউডের একটি অন্যতম জনপ্রিয় জুটি আমির খান-জুহি চাওলা অভিনীত ‘দওলত কি জঙ্গ’ ছবিটি প্রেম, বিচ্ছেদ ও মিলনের নানারকম টানাপোড়ন নিয়ে গল্প। সঙ্গে রয়েছে ‘ট্রেজার হান্ট’ ও। ছবিতে নায়ক-নায়িকাকে ট্রেজার হান্ট করতে দেখা গেলেও বক্স অফিসকে এই ছবি কোনও ‘ট্রেজার’ই দিতে পারেনি।

আতঙ্ক হি আতঙ্ক: ১৯৯৫ সালে ‘দ্য গডফাদার’-কে অনুসরণ করে তৈরি হয়েছিল ‘আতঙ্ক হি আতঙ্ক’। ছবিতে ‘আতঙ্ক’ তৈরি করার রসদ হিসাবে মজুত ছিল আমির খান-জুহি চাওলা জুটি, রজনীকান্ত, বাপ্পি লাহিড়িরির সঙ্গীত। কিন্তু কোনও কিছুই এই ছবিকে বাঁচাতে পারেনি।